নয়াদিল্লি : ছয় মাস অতিক্রান্ত, দেশজুড়ে চলছে আনলক-ফোর তবুও মিলছে না স্বস্তি। দিন যত এগোচ্ছে ততই দেশে হু-হু করে বাড়ছে সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা। করোনা মহামারীর থাবায় এখনও পর্যন্ত গোটা দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছুঁয়েছে ৫২ লাখের কাছে। মৃতের সংখ্যা প্রায় ৮৩ হাজার ২০০ জন।

তবে এত কঠিন পরিস্থিতির মধ্যেও করোনার ভ্যাক্সিন নিয়ে কিছুটা হলেও আশার কথা শোনাল রাশিয়া। নভেম্বর মাসেই ভারতের বাজারে মিলতে পারে রাশিয়ার তৈরি করোনার প্রতিষেধক স্পুটনিক-ভি। বুধবার একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে সাক্ষাৎকারে এই কথা জানিয়েছেন, রুশ প্রতিষেধক সংস্থার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ ভারতীয় সংস্থা ডঃ রেড্ডি ল্যাবের ম্যানেজিং ডিরেক্টর জিভি প্রসাদ।

এদিন তিনি আরও বলেন, বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মারণ ব্যাধিকে বশে আনতে আমরা রাশিয়ান সংস্থা আরডিআইএফ’র সঙ্গে একটি মউ চুক্তি স্বাক্ষর করেছি। এই চুক্তি অনুযায়ী যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ভারতের বাজারে করোনার ভ্যাক্সিন নিয়ে আসা। তবে তিনি আরও জানিয়েছেন বর্তমান এই অতিমারীর হাত থেকে রেহাই পেতে ভারত সহ বিশ্বের সমস্ত দেশই দিনরাত এক করে নিজেদের সাধ্যমত ভ্যাক্সিন আবিস্কারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

আরও জানাগিয়েছে যে, রাশিয়ার তৈরি ভ্যাক্সিন স্পুটনিক-ভি ভারতে বাজারজাত করার আগে ফের এর ট্রায়াল নেওয়া হবে এবং গোটা প্রক্রিয়াটি সম্পুর্ণ হতে আরও বেশ কয়েক মাস সময় লেগে যেতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এই বিষয়ে বলতে গিয়ে আরডিআইএফ-র প্রধান কর্মকর্তা কিরিল দিমিত্রিভ বলেছেন, “আমরা নিশ্চিত যে ভারত কোভিড -১৯-এর লড়াইয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে৷ ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ ভারতে ফার্মেসি সেক্টর গুলিকে আরও শক্তিশালী করে তুলেছে।”

রাশিয়ার স্পুটনিক-ভি ভ্যাকসিন নিয়ে উত্থাপিত সন্দেহ সম্পর্কিত একটি প্রশ্নের জবাবে দিমিত্রিভ বলেছিলেন, “এটি পশ্চিমি দেশীয় সংস্থাগুলির নেতিবাচক প্রচারের একটি স্পষ্ট উদাহরণ। আমাদের তৈরি ভ্যাকসিনটি মানুষের কোষের উপর ভিত্তি করে পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়েছে । পশ্চিমি দেশের ভ্যাকসিন গুলির সঠিক পরীক্ষা করা হয়নি। আমাদের ভ্যাক্সিন নিরাপদ এবং অনেক উন্নত।”

শুধু তাই নয়, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী নভেম্বর মাসের মধ্যে ভারতে এই ভ্যাক্সিনের চারটি কোর্স পাঠানো হবে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও প্রথম দফায় ভারতে ৪০,০০০ এরও বেশি লোক এই টিকা গ্রহন করতে পারবেন বলে জানা গিয়েছে। এখন দেখার বিষয় কবে প্রতীক্ষার অবসান হয়!

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।