স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: উদ্বেগ বাড়িয়ে রাজ্যে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১০ হাজার ছুঁইছুঁই। গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ৮১৯ জন। যা দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে বাংলায় এখনও সর্বোচ্চ। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪৬ জনের। যা উদ্বেগ বাড়াচ্ছে৷

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিনে জানানো হয়েছে, বাংলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৭৮ হাজার ১৭২। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৮০৫ জন। মোট মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ৬৫২জন৷  এই মুহূর্তে রাজ্যে অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা ৫৮ হাজার ৩৮৬। বাংলায় সুস্থতার হার ৮৯.৮২ শতাংশ।

আরও পড়ুন: কোভিড বিধি মেনেই শুরু মাধ্যমিকের প্রস্তুতি

রাজ্যের মধ্যে কলকাতায় সবচেয়ে বিপজ্জনক পরিস্থিতি। উল্লেখ্য, সোমবার রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানানো হয়, রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ৪২৬ জন। আর শুধু কলকাতায় গত ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ২১১ জন।  মঙ্গলবার কলকাতায় এই মুহূর্তে মোট অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা ১৫ হাজার ৭৯২। গত ২৪ ঘণ্টায় কলকাতায় মোট কোভিড কেস ২২৩৪। সুস্থ হয়ে বাড়ি গিয়েছেন ১২০৯ জন। মোট মৃত্যু ৩,২৩১ জন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মৃত্যু ১৩ জনের। শহরে মোট সক্রিয় কোভিড রোগী ১৫,৭৯২, গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত হয়েছেন ১০১২ জন।

আরও পড়ুন: ‘ভোটের পর লকডাউন করবে কেন্দ্র’, দাবি অভিষেকের

এরপরই রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা। সেখানে মোট অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা ১২ হাজার ৪০৭। গত ২৪ ঘণ্টায় উত্তর ২৪ পরগনায় আক্রান্ত ১,৯০২ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় আক্রান্ত ৫৮১ জন, হাওড়ায় ৫৭৭ জন। হুগবিতে ৪৯০ জন। গত একদিনে হাওড়ায় মারা গিয়েছেন ২ জন, হুগলিতে ২, উত্তর ২৪ পরগনায় মৃত্যু হয়েছে ১৫ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় মারা গিয়েছেন ১ জন।

রাজ্যে ক্রমশ বাড়ছে করোনা। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের স্বাস্থ্যকর্মী এবং চিকিৎসকদের ছুটি বাতিল করেছে প্রশাসন। এমনকী, প্রয়োজনের ছুটির দিনেও কাজ করতে হতে পারে তাঁদের, সম্প্রতি স্বাস্থ্য দফতরের জারি করা নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে এমনটাই।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.