ফাইল ছবি

কলকাতা: উৎসবের পর সংক্রমণ বাড়বে এমনটাই অনেকে আশঙ্কা করেছিলেন৷ কিন্তু একাদশীতে দেখা গেল উল্টো ছবি৷ দৈনিক সংক্রমণ কমে চার হাজারের নিচে৷ একদিনে মৃত্যু হয়েছে আরও ৫৮ জনের৷ তবে আগামী দিনে বাংলার কি পরিস্থিতি দাঁড়ায় সেদিকে নজর রাখছে স্বাস্থ্য দফতর৷

একাদশীর সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন বুলেটিনের তথ্য অনুযায়ী, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত ৩,৯৫৭ জন৷ অনেক দিন পর দৈনিক সংক্রমণ চার হাজারের নিচে নেমে এল৷ সোমবারও ছিল ৪,১২১ জন৷ আর সব মিলিয়ে মোট আক্রান্ত ৩ লক্ষ ৫৭ হাজার ৭৭৯ জন৷

গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে ৫৮ জনের মৃত্যু হয়েছে ৷ সোমবার ছিল ৫৯ জন৷ তুলনামূলক কমেছে দৈনিক মৃতের সংখ্যাও৷ রবিবার ছিল ৬০ জন৷ এই পর্যন্ত রাজ্যে মোট মৃতের সংখ্যা ৬,৬০৪ জন৷
অনেক দিন পর ফের কমল অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা৷ এদিনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী,৩৭ হাজার ১৭২ জন৷ সোমবার ছিল ১৯০ জন৷ তুলনামূলক ১৮ জন কম৷

এদিনও নতুন আক্রান্তের তুলনায় সুস্থ হয়ে উঠার সংখ্যাটা কম৷ একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩,৯১৭ জন৷ সোমবার ছিল ৩,৮৮৯ জন৷ তার ফলে এই পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ লক্ষ ১৪ হাজার ৩ জন৷ সুস্থতার হার বেড়ে ৮৭.৭৬ শতাংশ৷ সোমবার ছিল ৮৭.৬৪ শতাংশ৷

একদিনে যে ৫৮ জনের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে কলকাতার ১৪ জন৷ উত্তর ২৪ পরগনার ১১ জন৷ দক্ষিণ ২৪ পরগনার ৬ জন৷ হাওড়ার ৫ জন৷ হুগলি ৩ জন৷ পূর্ব মেদিনীপুর ৫ জন৷ পশ্চিম মেদিনীপুর ২ জন৷ ঝাড়গ্রাম ১ জন৷ বাঁকুড়া ২ জন৷ পুরুলিয়া ২ জন৷ নদিয়া ১ জন৷ মালদা ২ জন৷ উত্তর দিনাজপুর ২ জন৷ জলপাইগুড়ি ১ জন৷ আলিপুরদুয়ার ১ জন৷

যদিও বাংলায় একদিনে ৪২ হাজার ২৩১ টি নমুনা টেস্ট হয়েছে৷ সোমবার ছিল ৪২ হাজার ২৩১ টি৷ এই মূহুর্তে মোট টেস্টের সংখ্যা ৪৩ লক্ষ ৮২ হাজার ৬৭৮ টি৷ প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় টেস্টের সংখ্যা বেড়ে হল ৪৮,৬৯৬ জন৷

এই মুহূর্তে সরকারি এবং বেসরকারি মিলিয়ে রাজ্যে ৯২ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে৷ আরও ১ টি ল্যাবরেটরি অপেক্ষায় রয়েছে৷ আশা করা যায় ওই ল্যাবরেটরিতে শীঘ্রই টেস্ট শুরু হবে৷

বাংলায় এই মূহুর্তে ৯৩ টি সরকারি এবং বেসরকারি হাসপাতালে আইসোলেশন শয্যা তৈরি করা হয়েছে৷ এর মধ্যে সরকারি ৩৮ টি হাসপাতাল ও ৫৫ টি বেসরকারি হাসপাতাল রয়েছে৷ হাসপাতালগুলিতে মোট কোভিড বেড রয়েছে ১২,৭৫১ টি৷ আইসিইউ শয্যা রয়েছে ১,৮০৯টি, ভেন্টিলেশন সুবিধা রয়েছে ১০৯০টি৷ কিন্তু সরকারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার রয়েছে ৫৮২টি৷

দেশে এবং বিদেশের একাধিক সংবাদমাধ্যমে টানা দু'দশক ধরে কাজ করেছেন । বাংলাদেশ থেকে মুখোমুখি নবনীতা চৌধুরী I