মুম্বই: এই মুহূর্তে অর্থনীতি কিছুটা ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষণ দেখা গিয়েছে, কিন্তু করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ সেই পথে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। সম্প্রতি রিজার্ভ ব্যাংকের ঋণনীতি কমিটির বৈঠকে এমন ঝুঁকির আশঙ্কার কথা তুলে সতর্ক করেছেন তিনি।

শুক্রবার ওই বৈঠকের সংক্ষিপ্ত কার্য বিবরণী প্রকাশিত হয়েছে। যাতে ডেপুটি গভর্নর এমডি পাত্র জানিয়েছেন, এই অতি মহামারীর জন্য দেশের যে পরিমাণ উৎপাদন হারিয়েছে তা ফের ফিরে পেতে কয়েক বছর সময় লাগবে। বিভিন্ন মহলের সমীক্ষা এবং অভিমত জানিয়েছে অন্তত পুরনো অবস্থায় ফিরে যেতে বছরখানেক সময় লেগে যাবে ঠিকমতো অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড়াতে।

এমন পরিস্থিতিতে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে রিজার্ভ ব্যাংক গত দুটি ঋণনীতিতে সুদের হার অপরিবর্তিত রেখেছে। যদিও অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড়াতে সুদের হার কমানোর দাবি জোরালো হচ্ছে। তবে এই প্রসঙ্গে শক্তিকান্ত জানিয়েছেন, বিষয়টা নির্ভর করছে মূল্যস্তর কেমন থাকে তার উপর।

তার বক্তব্য, যদি মূল্যবৃদ্ধি আশানুরূপ থাকে তখন সুদ কমানোর পথে হাটা যেতে পারে। রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নরের অভিমত, অর্থনীতির চাকা ঘোরাতে এই বিষয়টি বুঝেসুঝে প্রয়োগ করতে হবে। এটা ঘটনা সেপ্টেম্বর মাসে দেশে খুচরো মূল্যবৃদ্ধির হার ৭.৩৪ শতাংশ।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।