স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: চিকিৎসক নার্স ও নিরাপত্তা রক্ষীদের নজর এড়িয়ে কোভিড হাসপাতাল থেকে পলাতক করোনা আক্রান্ত মহিলা।

রবিবার রাতে বালুরঘাটের প্রয়াস আত্রেয়ী কোভিড হাসপাতালের এই ঘটনায় প্রশাসনিক মহলে রীতিমত চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। যদিও রাতভোর তল্লাশি শেষে সোমবার সকালে পলাতক করোনা পজেটিভকে পুলিশ উদ্ধার করে ফের ওই হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছেন।

এদিকে ঘটনার জেরে রবিবার রাত থেকেই প্রয়াস আত্রেয়ী কোভিড হাসপাতাল ও তার আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গত শনিবার যে ৯ জন করোনা আক্রান্তকে বালুরঘাটের কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল। তাঁদের মধ্যে ভিন রাজ্য থেকে ফিরে আসা স্থানীয় ডাঙ্গা পঞ্চায়েত এলাকার ২৫বছর বয়সী এক মহিলাও ছিলেন। রবিবার রাতে ডাঙ্গা এলাকার আক্রান্ত ওই মহিলা হাসপাতালের পিছনের জানালা গলে বাইরে পালিয়ে যান। হাসপাতালের ভেতর তাঁকে না পেয়ে হৈচৈ শুরু হয়ে যায় হাসপাতালে। খবর পাওয়া মাত্র পুলিশ তাঁর খোঁজে বালুরঘাট থেকে কলকাতা ও শিলিগুড়িগামী দূরপাল্লার বাসগুলির পাশাপাশি ডাঙ্গা পঞ্চায়েত এলাকাতেও তল্লাশি চালায়।

অবশেষে সোমবার সকালে ডাঙ্গার চৌরাপাড়া গ্রামে কন্টেইনমেন্ট চেকপোস্টে ধরে ফেলে পুলিশ। সেখান থেকে তাঁকে এম্বুলেন্স চাপিয়ে ফের কোভিড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

অন্যদিকে, দক্ষিণ দিনাজপুরে আরও ১০ জন করোনায় আক্রান্ত। গত ২২মে ২৫মে ও ২৭মে’তে জেলা থেকে যতগুলি লালা রসের নমুনার পরীক্ষার জন্য মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে পাঠানো হয়েছিল। তার মধ্যে ১০ জনের রিপোর্ট পজিটিভ ধরা পড়েছে।

রবিবার রাতে রেজাল্ট পাওয়া মাত্রই স্বাস্থ্য দফতর ও পুলিশ প্রশাসন তাঁদের প্রত্যেককে উদ্ধার করে বালুরঘাটের প্রয়াস আত্রেয়ী কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, আক্রান্ত দশ জনেরই বাড়ি কুমারগঞ্জ ব্লকে। ব্লকের দিওড় পঞ্চায়েত এলাকার আট জন। বাকি দুইজন বটুন ও ভৌওড় পঞ্চায়েত এলাকার। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধক নিয়মানুসারে এলাকা গুলিকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করেছে প্রশাসন। সোমবার দুপুর পর্যন্ত দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো মোট ছাব্বিশ। তাঁদের মধ্যে ছয়জন সম্পূর্ণ সুস্থ ও করোনা মুক্ত হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গিয়েছেন।

হাসপাতাল থেকে আক্রান্তের পালানোর কথা জেলা প্রশাসনের কেউ সরাসরি স্বীকার না করলেও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আধিকারিক জানিয়েছেন যে, পালানোর কিছুক্ষণের মধ্যেই পুলিশ সেই মহিলাকে উদ্ধার করেছে। পাশাপাশি তিনি একথাও জানিয়েছেন যে জেলা করোনা পজেটিভের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ছাব্বিশ। ছয়জন সম্পূর্ণ সুস্থ্য হয়ে বাড়ি গিয়েছেন। বাকিরাও সুস্থ্যই আছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প