মুম্বইঃ ‘বিগ বস ১৪’র বিজেতা রুবিনা দিলাইক করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। অভিনেত্রী এখবর নিজেই সোশ্যাল সাইটে জানিয়েছেন। করোনা মুক্ত হয়ে উঠলে নিজের প্লাজমা দান করার কথাও তিনি বলেছেন।

গত শনিবার রুবিনা নিজের ইনস্টাগ্রামে জানিয়েছিলেন, তিনি করোনা পজিটিভ হয়েছেন। আগামী ১৭ দিনের জন্যে নিজেকে আইসোলেট রেখেছেন তিনি। বিগত ৫/৬ দিনে যারা তার সংস্পর্শে এসেছিলেন তাদের করোনা টেস্ট করিয়ে নেওয়ার জন্যে অনুরোধ করেছেন। তিনি এও জানিয়েছেন ১ মাস পর নিজের প্লাজমা দান করার জন্যে সক্ষম হবেন।

অভিনেত্রীর এই পোস্টে ‘বিগ বস ১৪’র অন্যান্য প্রতিযোগী যেমন আলি গনি, জাসমিন বাসিন, নিক্কি তাম্বলি প্রমুখ তার দ্রুত সুস্থতা কামনা করেছেন। রুবিনার অনুগামীরাও তার সুস্থতার জন্যে প্রার্থনা করছেন। রুবিনার স্বামী অভিনব শুক্লা নিজের শুটিংয়ের কাজে পাঞ্জাবে ছিলেন। স্ত্রীর করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়ে তিনি শিঘ্রই মুম্বইয়ে ফিরে আসেন। একই বাড়িতে থেকেও নিজের স্ত্রীর থেকে আলাদা রয়েছেন অভিনব। চরম মিস করছেন রুবিনাকে। সেই অনুভূতি জাহির করে ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করেছেন। ছবিতে দেখা যাচ্ছে টুথব্রাশ র‍্যাকে কেবল তার একার টুথব্রাশটি রয়েছে। ছবির ক্যাপশনে লিখেছেন, সঙ্গী ছাড়া জীবন একেবারেই অসম্পূর্ণ। দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠো রুবিনা’। অভিনব এও জানিয়েছেন, কিভাবে তার স্ত্রী রুবিনা করোনা সংক্রমিত হলেন সেই বিষয়ে তাদের কোন ধারণাই নেই। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গেই তিনি পাঞ্জাব থেকে বিমানে করে ফিরে এসেছেন।

রুবিনা টেলিভিশনে পা দিয়েছেন ২০০৮ সালে ‘ছোটি বহু’ ধারাবাহিকটি দিয়ে। তারপর একাধিক জনপ্রিয় ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন তিনি। সম্প্রতি ‘বিগ বস ১৪’ বিজয়ী হয়ে স্বামী অভিনবের সঙ্গে একটি মিউজিক ভিডিও করেছেন। যার নাম ‘মারজানেয়া’। গানটি গেয়েছেন বলিউডের নেহা কাক্কার। এছাড়া ‘বিগ বস ১৩’র প্রতিযোগী পারশ ছাবড়ার সঙ্গে একটি পাঞ্জাবী মিউজিক ভিডিও করেছেন। যার নাম ‘গালাত’। এটি গেছেন আশিস কউর।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বলিউডের অসংখ্য তারকা সংক্রমিত হয়েছেন। টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রি থেকে শুরু করে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি রেহাই পাচ্ছে না কেউ। ইতিমধ্যে একাধিক বলিউড নক্ষত্র পতন হয়েছে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.