লখনউ: পান মশলা খাওয়ার নেশা নাকি ঘরবন্দি থাকার ভয়। আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে পালিয়ে পানের দোকান থেকে সোজা এক বন্ধুর বাড়ি, কর্তৃপক্ষের চোখ এড়িয়ে পালানো গেলেও বেশিদূর যাওয়া গেল না।

করোনা আক্রান্ত ঐ ব্যাক্তি আগ্রার এসএন মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি ছিলেন। কর্তৃপক্ষকে একঘণ্টার টানা খোঁজ খবর করতে বাধ্য করান ঐ ব্যাক্তি।

ঠিক কিছুক্ষণ পরেই এক বন্ধুর বাড়িতে তাঁকে বসে থাকতে দেখা যায়। সেই বন্ধুর গোটা পরিবার বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।

কর্তৃপক্ষ তাঁকে পাকরাও করে ফেললে তিনি জানান, ঐ ব্যাক্তি আসেপাশে কোন পানের দোকান খুঁজে পাননি তাই আরও কিছুটা যেতে হয়েছিল। কিছু পান মশলা খেয়ে পকেট ভর্তি করে পরে খাওয়ার ব্যবস্থা করেছেন।

পান মশলা খেয়ে এক বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে ইচ্ছা হলে তিনি সেখানে যান। তবে ঐ পরিবার করোনা আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিয়ে অবগত ছিলেন না। এরপরে ঐ পরিবারের তরফে আক্রান্তের পরিবারের কাছে ফোন গেলে জানা যায় তিনি কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়ে চিকিৎসাধীন।

তবে তিনি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করার জন্য বলেছিলেন। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ঐ ব্যাক্তিকে করা নজরদারিতে রাখা হয়েছে। এও জানা গিয়েছে, তিনি মানসিকভাবে কিছুটা আনস্টেবেল এবং সেই জন্য তাঁর চিকিৎসার প্রয়োজন আছে।

দেশে ফের লাফিয়ে বাড়ল করোনা সংক্রমণ। শেষ ২৪ ঘন্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হলেন, ২৮ হাজার ৪৯৮ জন। নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ৫৫৩ জনের। নতুন সংক্রমণের জেরে দেশে করোনা আক্রান্তের স০ঙ্খ্যা পেরিয়ে গেল ৯ লক্ষ। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫ লক্ষ ৭১ হাজারের বেশি মানুষ। অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ৩ লক্ষ ১১ হাজার ৫৬৫ জন। মোট মৃত্যু হয়েছে ২৩ হাজার ৭২৭ জনের।

তবে আশার কথা হল, একদিকে যেমন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, তেমনই বাড়ছে সুস্থতার হার। সোমবার পর্যন্ত গোটা দেশে আরোগ্যের হার ৬৩.০২ শতাংশ। এই ইস্যুতে ১৯টি রাজ্যের একটি তালিকা প্রকাশ করেছে কেন্দ্র। যে সব রাজ্যে আরোগ্যের হার বেড়েছে তাদের তালিকা প্রকাশিত হয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ