নয়াদিল্লি: কেউ পেটের দায়ে, আবার কেউবা একটু বেশী রোজগারের আশায় কাজ করতে গিয়েছিলো ভিনরাজ্যে। কিন্তু করোনা এবং লকডাউনের জেরে কাজ হারিয়ে প্রতিদিনই গ্রামের বাড়িতে ফিরছেন বহু শ্রমিক। ফলে কাজের জায়গা থেকে বাড়ি পর‍্যন্ত বহু মানুষজনের সংস্পর্শে আসছেন এই সমস্ত শ্রমিকেরা। ফলে তাদের মধ্যো গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে।

দেশের এমন পরিস্থিতিতে ভিনরাজ্যে কাজে যাওয়া শ্রমিকদের এবার আলাদা করে চিহ্নিত করবে রাজ্যসরকারগুলি। রবিবার সরকারি সূত্রে এই খবর জানা গিয়েছে। তাঁদের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

সরকারি সূত্রে খবর, পশ্চিমবঙ্গ সহ বিভিন্ন রাজ্য থেকে রুটিরুজির টানে প্রতিমুহূর্তে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কাজে যান বহু মানুষ। সেখানে গিয়ে নানা ধরনের কাজে যুক্ত থাকেন এইসব শ্রমিকেরা। ফলে কাজ শেষে নিজের রাজ্যে ফেরার পর তাঁরা সম্পূর্ন সুস্থ কিনা সেই বিষয়ে কোনও পরীক্ষা-নিরিক্ষা করা হত না এতদিন। কিন্তু বর্তমানে দেশ তথা গোটা বিশ্বে যা পরিস্থিতি তাতে এবার থেকে বাইরে থেকে কাজ করে এলেই সেইসব শ্রমিকদের আলাদা করে চিহ্নিত করে তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করবে বিভিন্ন রাজ্যের সরকার।

জানা গিয়েছে, এই বিষয়ে রাজ্যগুলিকে সাহায্য করবে সংশ্লিষ্ট রাজ্যোর জেলাগুলির শাসক, মহাকুমা শাসক এবং পুলিশ-প্রশাসন। এছাড়াও গ্রামীন স্বাস্থ্য দদফতরের তরফ থেকেও এই বিষয়ে গ্রাম-মফস্বলের বাড়ি গুলিতে গিয়ে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সচেতনতা করা হবে সাধারণ মানুষদের। যার ফলে শ্রমিকেরা আরও বেশি সচেতন হবেন এবং পরবর্তী সময়ে তাঁরা বাইরে থেকে এসে নিজেরাই গ্রামের প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে শারীরিক পরীক্ষা নিরিক্ষা করাবেন।

সূত্রের খবর, আমাদের দেশে বিহার, পশ্চিমবঙ, অন্ধ্রপ্রদেশ, উত্তর প্রদেশ,মহারাষ্ট্র এবং মধ্যপ্রদেশ সহ বিভিন্ন রাজ্যে প্রচুর গরীব মানুষ বসবাস করেন। যারা দুপয়সা বেশী রোজগারের আশায় দিল্লি, পাঞ্জাব সহ আশেপাশের মেট্রো সিটি গুলিতে কাজের উদ্দেশ্যে পাড়ি জমান। সেখানে গিয়ে তাঁরা শ্রমিকের কাজ থেকে শুরু করে রেস্তোরায় কর্মী, ডেলিভারি বয় সহ বিভিন্ন কাজে যুক্ত থাকে।

কিন্তু বর্তমানে লকডাউনের জেরে দেশের প্রতিটা কোনায় ছোটোবড়ো শপিং মল, রেস্তোরা, বার সমস্ত কিছুতেই আপাতত ২১ দিনের জন্য তালা ঝোলানোর নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

এই অবস্থায় নিরুপায় হয়ে, কলকারখানা বন্ধ থাকায় কাজ হারিয়ে বাড়ি ফিরতে বাধ্য হচ্ছেন এইসব অসহায় খেটে খাওয়া মানুষেরা।

ফলে এবার তাঁদের স্বাস্থ্যের প্রতি নজর দিতে স্থানীয় জেলা প্রশাসন সহ পুলিশ কর্মীদের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। কারন, যে ভাবে হুহু করে দেশে সংক্রামিত রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলেছে, তাতে ভিনরাজ্য থেকে বাড়ি ফিরে আসা শ্রমিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা জরুরি। এরফলে সহজেই সংক্রামিত রোগীদের চিহ্নিত করা যাবে।

এক্ষেত্রে সরকারের নির্দেশে এবার থেকে রেলওয়ে প্লাটফর্ম, বাস টার্মিনাল সহ রাজ্যের গুরুত্বপূর্ন জায়গা গুলিতে বিশেষ নজরদারির চিন্তাভাবনা শুরু করেছে সরকার। যদিও এর সুফল কতটা হবে তা এখনই বলা সম্ভব নয়।