পাটনা : সরকারি বাসভবনেই তৈরি হল কোভিড হাসপাতাল। বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের ভাইঝি করোনা পজেটিভ হলেও তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়নি। এই করোনা আবহেও ভিভিআইপি সংস্কৃতি পুরো বজায় রাখলেন নীতিশ। অত্যাধুনিক সরঞ্জাম দিয়ে, নতুন মেডিকাল টিম তৈরি করে সরকারি বাসভবনেই হাসপাতাল বানিয়ে ফেললেন মুখ্যমন্ত্রী।

ছয় জন চিকিৎসক ও তিন জন নার্সকে নিয়ে তৈরি করা একটি মেডিকাল টিম কাজ করবে এই হাসপাতালে। তিনটি শিফটে কাজ হবে। মঙ্গলবার এই ইস্যুতে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে পাটনা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সুপার বিমল কারাক। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, রাজ্যের অতিরিক্ত সচিবের নির্দেশ অনুসারে ভেন্টিলেটর সহ একটি হাসপাতাল মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে তৈরি করা হচ্ছে। সেখানে কাজ করবেন ৬ জন চিকিৎসক ও ৩জন নার্স।

এই ইস্যুকে হাতিয়ার করতে ছাড়েনি বিরোধী আরজেডি। দলের নেতা তেজস্বী যাদব এদিন ট্যুইট করে বলেন মুখ্যমন্ত্রীর করোনা পরীক্ষার ফলাফল দুঘন্টার মধ্যে চলে এসেছে, মুখ্যমন্ত্রীর ভাইঝি করোনা আক্রান্ত, তারজন্য সরকারি বাসভবনেই তৈরি হয়েছে কোভিড হাসপাতাল। এই পরিষেবা ও এই তৎপরতা সাধারণ মানুষের ক্ষেত্রে থাকে না কেন।

এর আগে, করোনা আতঙ্ক তাড়া করে আরজেডি সুপ্রিমো লালু প্রসাদ যাদবকে। রাষ্ট্রীয় জনতা দল প্রধান লালুপ্রসাদের নিরাপত্তারক্ষী করোনা আক্রান্ত বলে জানা গিয়েছে। যে পুলিশ আধিকারিককে তাঁর নিরাপত্তার জন্য মোতায়েন করা হয়েছিল, সোমবার তাঁর রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে বলে খবর।

সূত্রের খবর ১২দিনের ছুটিতে গিয়েছিলেন ওই পুলিশ আধিকারিক। রাজ্যের গাইডলাইনস অনুযায়ী রাঁচিতে ফেরার সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে কোয়ারেন্টাইনে যেতে হয়। আইসোলেশনে থাকার সময় তাঁর করোনা পরীক্ষা করা হয়। এরপরেই ওই নিরাপত্তারক্ষীর রিপোর্ট পজেটিভ আসে।

হিন্দুস্তান টাইমসের রিপোর্ট জানাচ্ছে সদর ডেপুটি পুলিশ সুপার দীপক পান্ডে জানিয়েছেন ১২ দিন আগেই ওই পুলিশ কর্মী বিহারে নিজের গ্রামে চলে গিয়েছিলেন। ফলে লালুপ্রসাদের সংক্রমণের ভয় নেই। ওই কর্মী সুস্থ হওয়ার পরেই কাজে যোগ দেবেন। কোভিড হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছে।
উল্লেখ্য লালু প্রসাদ যাদব নিজেই অসুস্থ। তাই তাঁর শারীরিক ক্ষতির বড় আশঙ্কা ছিল। লালু গত দু বছর ধরে রাঁচি ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সে ভর্তি। ঝাড়খন্ডের এই হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে তাঁর। কিডনি, ডায়াবেটিস ও অন্যান্য রোগের চিকিৎসা চলছে লালুর।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ