নয়াদিল্লি : গোটা দেশে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। এই অবস্থায় গণহারে টিকা প্রদানের কাজ চললেও দেশের করোনা পরিস্থিতি যে দিকে এগোচ্ছে তাতে নতুন করে অশনী সংকেত দেখছেন বিশেষজ্ঞরা। শুধু তাই নয়, গত চব্বিশ ঘন্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ লক্ষ ২৬ হাজার জন। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছে ১ লক্ষ ২৬ হাজার ২৬৫ জন। এর ফলে দেশে মোট সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ লক্ষ ৫ হাজার ২১ জন। করোনার মারণ কামড়ে প্রাণ হারিয়েছে ৬৮৪ জন। এখনও পর্যন্ত মারা গিয়েছে ১ লক্ষ ৬৬ হাজার ৮৬২ জন।

আর এই উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে করোনার দ্বিতীয় কামড়ে সংক্রমিত রোগীদের নতুন করে ফের তিনটি উপসর্গ দেখা গিয়েছে । তবে সেগুলি করোনার নয়া স্ট্রেনের কারণে হচ্ছে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট আশঙ্কিত চিকিৎসক মহল।

জানা গিয়েছে , করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউয়ে আগের মতই শ্বাসকষ্ট, জ্বর বা স্বাদের পরিবর্তন অব্যাহত থাকলে এর সঙ্গে নতুন করে আরও তিনটি উপসর্গ যুক্ত হয়েছে। সেগুলি হল,

১. Pink Eyes বা গোলাপী চোখ – চিনে করা মোট ১২ জন রোগীর উপর এই সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে কনজেক্টিভাইটিস বা গোলাপী বর্ণের চোখ হল এই মারণ ব্যাধির নয়া উপসর্গ। আক্রান্তদের চোখ গোলাপী ভাব। বার বার ফুলে যাচ্ছে এবং ঘণ ঘণ চোখে জল আসছে।

২.Hearing impairment বা শ্রবণ ক্ষমতা কমে যাওয়া – করোনার নতুন উপসর্গ হিসেবে বিশেষজ্ঞরা সংক্রমিত রোগীর শ্রবণ ক্ষমতা হ্রাসের কথা জানিয়েছেন। মোট ৫৬ জনের উপর এই সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে ২৪ জন কানে শুনতে অক্ষম।

৩. Gastrointestinal symptoms বা গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল – করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে আক্রান্ত রোগীদের হজমেও সমস্যা দেখা দিচ্ছে। নয়া এই উপসর্গে রোগীর পেট ব্যথা, বমি বমি ভাব বা ডায়রিয়ার মতো লক্ষণ দেখা গিয়েছে।

তবে নতুন এই তিনটি উপসর্গের মধ্যে কোনও একটি যদি আপনার শরীরে দেখা দেয় তাহলে সময় নষ্ট না করে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন । বাড়িতেই থাকুন আর মেনে চলুন করোনা বিধি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.