ক্যানবেরা: রাশিয়া যতই বিশ্বের প্রথম করোনাভাইরাস মোকাবিলার টিকার দাবি করুক তাতে ভরসা নেই অস্ট্রেলিয়া সরকারের। স্পুটনিক ভি (স্পুটনিক ৫) টিকার বদলে ইংল্যান্ডের অক্সফোর্ড টিকা বেছে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন।

ওয়ার্ল্ডোমিটার জানাচ্ছে, অস্ট্রেলিয়ায় করোনা হামলার পর বুধবার পর্যন্ত ৪৫০ জন মৃত।

আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার জন। ভিক্টোরিয়া রাজ্য তে সবচেয়ে বেশি করোনা রোগীর সন্ধান মিলেছে।

আর রাশিয়া সরকারের দাবি, তাদের তৈরি স্পুটনিক টিকা চমকপ্রদ ফল দেবে। এই রুশ টিকার অন্যতম গ্রাহক হতে চলেছে মেক্সিকো। আর ভারতেও এই টিকা প্রস্তুত হবে বলে জানানো হয়েছে। আরও কিছু দেশ রাজি স্পুটনিক ভি সংগ্রহে। তবে ইংল্যান্ড, জার্মানি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশগুলি রুশ টিকা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে। সেই তালিকায় অস্ট্রেলিয়া সরকার যুক্ত হলো।

প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিশন জানিয়েছেন, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি করোনার টিকা ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে সফল হলে তা সব নাগরিককে বিনামূল্যে দেওয়া হবে। বৃটিশ ওষুধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান এস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে একটি চুক্তি করেছে অস্ট্রেলিয়া।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের খবর, চুক্তির ফলে অক্সফোর্ড টিকা বাজারে আসার পর প্রথম ধাপেই পাবে অস্ট্রেলিয়া সরকার। দেশের প্রায় ২ কোটি ৫০ লক্ষ জনকে বাধ্যতামূলক নিতে হবে এই টিকা।

বিবিসি জানাচ্ছে, করোনা টিকা তৈরির ক্ষেত্রে পাঁচটি টিকা ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের শেষ পর্যায়ে রয়েছে। অন্যতম হলো অক্সফোর্ডের টিকা। এটি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে ওষুধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান এস্ট্রাজেনেকা যৌথভাবে তৈরি করছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.