ওয়াশিংটন : করোনায় কাঁপছে গোটাবিশ্ব। ব্যাতিক্রম নয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও। করোনার ছোবলে বিশ্বের অন্যতম বিপর্যস্ত দেশ হল আমেরিকা। এই অবস্থায় সংক্রমণের দাপট ঠেকাতে একমাত্র পথই হল গণটিকাকরণ।

আর সেই লক্ষ্যেই আমেরিকা স্বাধীনতা দিবসের আগে অন্তত ৭০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক মার্কিন নাগরিকদের করোনার টিকা প্রদানের কাজ শেষ করা হবে বলে বিডেন প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।

বুধবার এই বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন (Joe Biden) একটি টুইট করে জানিয়েছেন যে, এখন তাঁদের প্রধান এবং অন্যতম মূল লক্ষ্যই হল স্বাধীনতা দিবসের আগে (4 July) অন্তত ৭০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক আমেরিকানদের ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ প্রদান করা। এছাড়াও অন্যতম আরও একটি লক্ষ্য হল, আমেরিকার স্বাধীনতা দিবস ৪ জুলাইয়ের আগে ১৬০ মিলিয়ন মার্কিন (160 million) অধিবাসীদের ভ্যাকসিনের সম্পূর্ণ ডোজ প্রদান করা।

যদিও বাইডেন সরকার গত ১ মে থেকে প্রাপ্তবয়স্ক আমেরিকানদের (Americans) টিকা(Vaccine) দেওয়ার কাজ শুরু করার কথা ঘোষণা করেছিলেন। কিন্তু তার দু সপ্তাহ আগে ১৯ এপ্রিল থেকে এই কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে।

শুধু তাই নয়, নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হিসেবে মার্কিন মসনদে বসার পর জো বাইডেন (Joe Biden) প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে, মাত্র ১০০ দিনের মধ্যে ১০০ মিলিয়ন আমেরিকানদের কোভিড শট দেওয়া হবে। কিন্তু তার আগেই ২২০ মিলিয়নের বেশি মানুষকে করেনার টিকা প্রদান করা হয়ে গিয়েছে।

এছাড়াও বাইডেন প্রশাসনের তরফে আরও জানানো হয়েছে যে, এখনও পর্যন্ত ১৫০ মিলিয়ন মার্কিন জনগণ করোনার প্রথম শট গ্রহণ করেছেন। শুধু তাই নয়, ১০৫ মিলিয়ন মানুষকে করোনার সম্পূর্ণ ডোজ প্রদান করা হয়ে গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, প্রায় ৮৫ শতাংশ প্রবীণ মার্কিন নাগরিক করোনার প্রথম ডোজ নিয়েছেন। এছাড়াও ৭০ শতাংশ প্রবীণ জনগণ পুরোপুরি টিকা গ্রহন করে ফেলেছেন।

এছাড়াও গত দু সপ্তাহ ধরে আমেরিকার ৪০ টি রাজ্যে করেনার দৈনিক সংক্রমণের রেশ কিছুটা নিম্মমুখী। শুধু তাই নয়, গত জানুয়ারি মাস থেকে করোনায় মৃতের সংখ্যাও অনেক হ্রাস পেয়েছে। এই কয়েক মাসে মার্কিন মুলুকে প্রায় ৭০ শতাংশ প্রবীণ নাগরিকদের মৃতের সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের শেষ থেকে এই পর্যন্ত করোনায় বিধস্ত দেশগুলির মধ্যে সবথেকে বেশি খারাপ অবস্থা আমেরিকার। মারণ ব্যাধির থাবায় মার্কিন মুলুকে প্রাণ হারিয়েছেন ৫,৭৮,৪০৭ জন। এছাড়াও সংক্রমণের সংখ্যা ছুঁয়েছে ৩.২ কোটিরও বেশি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.