নয়াদিল্লি: কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ডাকে সর্বদলীয় বৈঠকের ডাক দেওয়া হয়েছিল করোনা বিধ্বস্ত দিল্লির জন্য। সেখানেই দিল্লির সব মানুষের করোনা পরীক্ষা করা হবে, এমন আশ্বাস দিয়েছেন অমিত শাহ।

দিল্লির করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা ছাড়াও সর্বদলীয় বৈঠকে উত্তরপ্রদেশ, হরিয়াণার একাংশ এই আলোচনায় উঠে এসেছে।

অমিত শাহ আরও জানিয়েছেন, কিছুদিনের মধ্যেই দিল্লিতে করোনা পরীক্ষা প্রত্যেকদিন ১৮ হাজার হবে। রাজনৈতিক বাধা নিষেধ ভেঙে সকলেই চাইছেন করোনা পরীক্ষা বৃদ্ধি হোক।

বর্তমানে করোনা সংক্রমণে মহারাষ্ট্র, তামিলনাডুর পরেই দিল্লির স্থান। এখনও অবধি দিল্লিতে করোনা সংক্রমিত ৪১ হাজারের বেশি। মৃতের সংখ্যা ১৩০০ ছাড়িয়েছে।

আবার লকডাউনের কোনও ভাবনা নেই, গুজব উড়িয়ে সোমবার ঘোষণা করেছেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। অমিত শাহের সর্বদলীয় বৈঠকের কিছুক্ষণের মধ্যেই এমন ঘোষণা করেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী।

সোমবার সর্বদলীয় বৈঠকে দিল্লি এবং পার্শ্ববর্তী এলাকার জন্য করোনা ভাইরাসের স্ট্র্যাটেজি আলোচনা নিয়ে আলোচনায় বসেছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

কিছুক্ষণ পরেই কেজরিওয়াল ট্যুইট করে জানিয়েছে, “অনেকেই গুজব ছড়াচ্ছে দিল্লিতে আবার লকডাউন করার ভাবনা নেওয়া হয়েছে, তবে এরকম কোনও ভাবনা নেই।

রবিবার, অমিত শাহ জানিয়েছেন দিল্লিতে করোনা পরীক্ষা একসপ্তাহেই তিনগুণ বাড়বে এবং হাসপাতালে বেডের সমস্যা মেটাতে রেলের ৫০০ কামরা দেওয়া হবে।

রেলের তরফে ৫০০ কামরা দেওয়ায় শুধু যে দিল্লিতে ৮০০০ বেড বাড়বে তা নয় এইগুলি কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসার সব ব্যবস্থাসম্পন্ন হবে, এমনটাই জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

আগামী দু’দিনে করোনা পরীক্ষা দ্বিগুণ হবে এবং ছয়’দিনে COVID-19 টেস্ট তিনগুণ বাড়বে দিল্লিতে, মোদী সরকারের তরফে তেমন আশ্বাস দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

জুনের ৮ তারিখ থেকে দিল্লিতে খুলে গিয়েছে দোকান, মার্কেট, অফিস এবং আনলক ওয়ান শুরু হতেই সাধারণ মানুষের যাতায়াত চলছে বিধিনিষেধ মেনে। মার্চ মাস থেকে চলা লকডাউন থেকে বেরতেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

যদিও দিল্লিতে ক্রমবর্ধমান সংক্রমণের দিকে তাকিয়ে এবং হাসপাতালে বেডের অভাবের খবরে সোশ্যাল মিডিয়ায় আওয়াজ ওঠে ‘রিলক দিল্লি’। সাধারণ মানুষের একাংশে গুজব শোনা যায়, দিল্লি আবারও কড়া লকডাউনে প্রবেশ করতে চলেছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ