দুবাই: করোনার জেরে বদলে যেতে চলেছে ক্রিকেট। একটা বড় অংশের বিরোধীতা সত্ত্বেও ক্রিকেট কমিটি প্রস্তাবিত লালা ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞায় আইসিসি তো সিলমোহর দিলোই সঙ্গে করোনার জেরে অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের জন্য বাইশ গজে আরও একাধিক বদলে সিলমোহর পড়ল। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ভাবে রয়েছে কোভিড১৯ রিপ্লেসমেন্ট, অতিরিক্ত ডিআরএস এবং আন্তর্জাতিক সিরিজে ঘরোয়া ম্যাচ অফিসিয়ালসদের ব্যবহার।

ভারতের প্রাক্তন লেগ-স্পিনার অনিল কুম্বলে নেতৃত্বাধীন আইসিসি’র ১৬ সদস্যের কমিটি করোনা সংক্রমণ এড়াতে লালা ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞার প্রস্তাব এনেছিল আগেই। কমিটির প্রস্তাব মতোই লালা ব্যবহারে জারি হল নিষেধাজ্ঞা। তবে বল পালিশে ঘাম ব্যবহার করা যাবে। আগামী ৮ জুলাই ইংল্যান্ড সফরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ দিয়ে লকডাউন পরবর্তী সময় শুরু হচ্ছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট।

ইংল্যান্ড বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ থেকেই বাইশ গজে নয়া চালচিত্রের সঙ্গে পরিচিত হবেন অনুরাগীরা। অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের জন্য বাইশ গজে যে সকল পরিবর্তনে সিলমোহর পড়ল, সেগুলো দেখে নেওয়া যাক একনজরে।

বল পালিশে লালা ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা: লাল বল পালিশের ক্ষেত্রে মুখের লালা ব্যবহার করতে পারবেন না বোলার কিংবা ফিল্ডাররা। ভুলবশত কোনও বোলার লালা ব্যবহার করে ফেললে আম্পায়ার প্রাথমিকভাবে ধৈর্য্যের সঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনবেন। কিন্তু একই ভুলের পুনরাবৃত্তি হলে দলের অধিনায়কের কাছে সতর্কবার্তা পৌঁছে যাবে। জোড়া সতর্কবার্তায় বিপক্ষ টিমের রানের খাতায় যোগ হবে অতিরিক্ত ৫ রান। আর প্রত্যেক ক্ষেত্রেই লালা ব্যবহারের পর বল পরিষ্কার করে তবেই খেলা ব্যবহারের অনুমতি দেবেন আম্পায়াররা।

কোভিড১৯ রিপ্লেসমেন্ট: টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন কোন ক্রিকেটারের শরীরে যদি করোনা ভাইরাসের উপসর্গ দেখা দেয় তাহলে ম্যাচ রেফারি বিষয়টি পর্যালোচনা করে সংশ্লিষ্ট দলকে লাইক টু-লাইক পরিবর্তনের অনুমতি প্রদান করবেন। এই নিয়ম অনেকটা কনকাশন পরিবর্তনের মতোই।

অতিরিক্ত ডিআরএস: যেহেতু করোনা পরবর্তী সময় বাইশ গজে স্থানীয় আম্পায়ারদের আধিক্য বাড়ছে তাই সেকথা মাথায় রেখে প্রতি ইনিংসে ডিআরএসের সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল বিশ্ব ক্রিকেটের গভর্নিং বডি। কম অভিজ্ঞতাসম্পন্ন আম্পায়ারের আধিক্য নিশ্চিতভাবে অসফল আবেদনের সংখ্যা বাড়াবে ক্রিকেটে। সেকথা মাথায় রেখেই গৃহীত হয়েছে সিদ্ধান্ত। টেস্টে প্রতি ইনিংসে ৩টি এবং ওয়ান-ডে ক্রিকেটে প্রতি ইনিংসে ২টি করে ডিআরএস আপবে দলগুলো।

অনিরপেক্ষ আম্পায়ার: সীমান্ত পারাপারে নিষেধাজ্ঞা সহ একাধিক বিষয়ের কথা মাথায় রেখে নিরপেক্ষ ম্যাচ অফিসিয়াল নিযুক্ত করার নিয়ম অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের জন্য শিথিল করল আইসিসি। এই সময়কালে আইসিসি এলিট প্যানেল অথবা আইসিসি আন্তর্জাতিক প্যানেল থেকে স্থানীয় ম্যাচ অফিসিয়াল নিযুক্ত করতে পারবে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা।

এছাড়া আগামী ১২ মাস অন্তর্বর্তী সময়কালে ক্রিকেটাররা তাদের জার্সিতে ব্যবহার করতে পারবেন অতিরিক্ত লোগো। অনুমতি দিল এক্সিকিউটিভ কমিটি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।