নয়াদিল্লি: করোনা আর মানুষে টানাটানি চলছেই। জীবন মৃত্যুর এই লড়াইতে অদৃশ্য ভাইরাস হামলায় বিশ্ব তথৈবচ। তবে এরই মধ্যে কিছুটা হলেও আশার আলো দেখাচ্ছে সরকার।

জানা গিয়েছে, দৈনন্দিন করোনা টেস্টের হারে খুব শীঘ্রই নয়া মাইলফলক তৈরী করতে চলেছে আমাদের দেশ ভারত। কোনও ব্যক্তি করোনা সংক্রামিত কিনা তা জানতে ব্যাপক হারে চলছে করোনা টেস্টিং। শুধু তাই নয়, গোটাদেশে গত চব্বিশ ঘন্টায় প্রায় সাত লাখ মানুষের করোনা টেস্ট করা হয়েছে। এছাড়াও করোনার উপসর্গ রয়েছে এমন রোগীদের শনাক্ত করে প্রতি মিনিটে প্রায় পাঁচশো জনের উপর করোনা টেস্ট করা হচ্ছে।

এই বিষয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, যেভাবে গোটা দেশে লাফিয়ে, লাফিয়ে সংক্রমণের হার বাড়ছে তাতে করোনা রোধে অতিদ্রুত টেস্টিং এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। আর সেই লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে গত চব্বিশ ঘন্টায় প্রায় সাত লাখ মানুষের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এছাড়াও প্রতি মিনিটে পাঁচশো টেস্টের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সারা দেশে
এখনও পর্যন্ত প্রায় ২,৪১,০৬,৫৩৫ টি করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, দেশে গত একদিন ছয় লক্ষেরও বেশি করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এবং গত ২৪ ঘন্টার মধ্যে ভারতে প্রায় ৭,১৯,৩৬৪ জনের করোনা পরীক্ষা করানো হয়েছে।

এদিকে, দেশে মাত্র একদিনে নতুন করে ৫৬,২৮২ জনের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। শনি থেকে রবি এই চব্বিশ ঘন্টায় ৯০৪ জন মারা গিয়েছে। দেশে বর্তমানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯,৬৪, ৫৬৭। সক্রিয় আক্রান্ত রয়েছে ৫,৯৫,৫০১জন এবং সম্পূর্ন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন ১৩,২৮,৩৩৭জন। তবে এতকিছুর মধ্যে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪০,৬৯৯।

গত শনিবার, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছিল যে, কমপক্ষে দেশের আটটি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে সক্রিয় আক্রান্ত প্রায় ৯ শতাংশ এবং কোভিড -১৯ এ মৃত্যুর হার ১৪ শতাংশ। যা জাতীয় মৃত্যুর হার (সিএফআর) বা গড়ের চেয়েও বেশি। এখনও পর্যন্ত জাতীয় সিএফআর ২.০৪ শতাংশ।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও