খারাপ সময় কাটবে। শুধু একটাই আশা নিয়ে বেঁচে আছে মানুষ। চারপাশে যখন মারণ করোনার থাবা, তখন শুধুমাত্র ভ্যাক্সিনই দেখাতে পারে আশার আলো।

সোমবার থেকেই ভারতে শুরু হচ্ছে ‘কোভ্যাক্সিন’-এর হিউম্যান ট্রায়াল। ভারতীয় সংস্থা ‘ভারত বায়োটেক’ আইসিএমআরের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে এই ভ্যাক্সিন তৈরি করেছে। সোমবার থেকেই মানবদেহে সেই ভ্যাক্সিনের পরীক্ষা-নিরিক্ষা শুরু করবে পাটনার এইমস।

ফেজ ওয়ানের ফলাফল সামনে আসলে পরের ধাপে পরীক্ষা হবে। ১২টি ইনস্টিটিউট বেছে নেওয়া হয়েছে ট্রায়ালের জন্য। এর মধ্যে রয়েছে দিল্লি ও পাটনার এইমস।

ফেজ ওয়ানে অংশ নেবে ৩৭৫ জন। তিনটি ভাগে তাদের ভাগ করা হবে। প্রত্যেককে ১৪ দিন বাদে বাদে দুটি ডোজ দেওয়া হবে। ফেজ ওয়ান শেষ হলে পরের ফেজের জন্য ৭৫০ জনকে নেওয়া হবে।

কেন্দ্রীয় সরকার বিতর্কে ইতি টেনে সাফ জানিয়েছে, ১৫ অগাস্ট নয় করোনার ভ্যাক্সিন ‘কোভ্যাক্সিন’ জনসাধারণের জন্য আসতে ২০২১ সাল পর্যন্ত সময় লেগে যাবে। এরই মাঝে ফের আইসিএমআর জানাল করোনার ভ্যাক্সিন হিউম্যান ট্রায়ালের জন্য রেডি করা হচ্ছে।

বিস্তারিত আসছে…

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ