মুম্বই: বলিউডি অভিনেতার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পুনরায় শুরু হওয়া হিট অ্যান্ড-রান মামলার শুনানি ১৩ জুলাই পর্যন্ত স্থগিত করল বম্বে হাইকোর্ট৷ এই মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর পাঁচ বছরের সাজা শোনায় নিম্ন আদালত৷ সেই রায়েরই বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন সলমন খান৷চলতি মামলায় পেশ করা যাবতীয় তথ্যপ্রমাণ খতিয়ে দেখার জন্য সলমনের আইনজীবী সময় চাওয়ার পরই ১৩ জুলাই পর্যন্ত মামলার শুনানি স্থগিত করেন বম্বে হাইকোর্টের বিচারপতি এআর যোশি৷

আদালত সূত্রে খবর, পেপার কপি তৈরি হয়ে গিয়েছে৷ আদালতের পক্ষ থেকে বাদী ও বিবাদী পক্ষের আইনজীবীদের হাতে তা তুলেও দেওয়া হয়েছে৷ তথ্যগুলি ঠিকঠাক আছে কি না তা দেখার জন্য এক সপ্তাহ সময় চান সলমনের আইনজীবী অমিত দেশাই৷ তিনি বলেন, কোনও মারাঠি নথির অনুবাদ হয়েছে কি না সেটা তিনি আগে দেখতে চান, না হয়ে থাকলে সেগুলিকে ইংরেজিতে অনুবাদ করার সময় চান৷ তাছাড়া যদি কোনও নথি খোয়া গিয়ে থাকে, তাহলে সেটাও দেখা দরকার৷ যদি দেখা যায়, সত্যিই কোনও নথি অমিল, তাহলে সেগুলি ঠিক ঠিক জায়গায় যাতে আবার সংযোজিত হয়, সেজন্য আদালতের নির্দেশ চেয়ে তাঁকে হয়তো আবেদনও করতে হতে পারে৷ এদিন অবশ্য আদালতে উপস্থিত ছিলেন না সলমন খান৷ তাঁর হয়ে আদালতে এসেছিলেন বোন আলভিরা৷

উল্লেখ্য, গত ৮ মে সলমনের সাজার উপর স্থগিতাদেশ জারি করে ৪৯ বছরের এই অভিনেতার জামিন মঞ্জুর করে হাইকোর্ট৷নিম্ন আদালতের মামলায় অভিযোগ ছিল, ২০০২ সালে সলমনের গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় এক ফুটপাতবাসীর৷ জখম হন আরও চারজন৷ ১৩ বছর পর এই ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হন সলমন খান৷ মে মাসে তাঁকে পাঁচ বছরের সাজা শোনায় আদালত৷