চণ্ডীগড় : ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত স্বঘোষিত ভগবান রাম রহিম সিংয়ের সাজা ঘোষণা হবে সোমবার৷ কার আগে শনিবার পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টের তরফ থেকে একটি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ বলা হয়েছে, ডেরা সাচ সৌদের সদর দফতর থেকে যা কিছু প্রমাণ পাওয়া যাবে তা আদালতে পেশ করা হয়৷ ডেরার নেতাদের ফোনের ডিটেলস দেওয়ার কথা বলা হয়েছে পুলিশকে৷ সেই কারণে নেতাদের ফোন ট্যাপ করতে পারে পুলিশ৷

হাইকোর্টের ৩ বিচারপতির বেঞ্চ এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেছে৷ বেঞ্চের প্রধান বিচারপতি এস এস স্যারন নির্দেশিকায় বলেছেন, হিংসায় ঘি ঢালার জন্য ডেরার নেতারা যে বার্তাগুলি দিয়েছেন তা যেন আদালতে সিল করা খামে করে পেশ করা হয়৷ সেই সঙ্গে ফোন কলের ডিটেলসও প্রকাশ করতে বলা হয়েছে৷

তবে শুধু ফোন কলের ডিটেলসই চায়নি আদালত৷ স্থানীয় সংবাদপত্রের রিপোর্টও পেশ করতে বলেছে৷ স্থানীয় সংবাদপত্রে ডেরা সচা সৌদা দলের মুখপাত্র আদিত্য ইনসান সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হয়েছে৷ সেই সব রিপোর্টই জমা দিতে বলেছে আদালত৷ রিপোর্টারদের সঙ্গে ঘটনাগুলি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পুলিশকে৷

ধর্ষণের দায়ে গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর তাঁর অনুগামীরা বিক্ষোভ দেখায়৷ পাঁচকুলা কোর্ট চত্বরের বাইরে বিক্ষোভ দেখানোর পাশাপাশি হরিয়ানা ও পঞ্জাবের একাধিক জায়গায় বিক্ষোভ দেখায় তারা৷ বিক্ষোভের আঁচ এসে পড়ে রাজধানী দিল্লিতেও৷ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৩১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে৷ আহতের সংখ্যাও প্রচুর৷ আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷

হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে পুলিশ শনিবার ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে৷ তাদের একদিনের পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে৷ ওই ৬ জন গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের ব্যক্তিগত সিকিউরিটি গার্ড পরিচয় দিয়েছিল৷ তাদের নাম রঞ্জিৎ, ধর্মেন্দ্র, অনুপ, কৃষ্ণ পাল সিং, মনীন্দ্র সিং ও সুখবিন্দর সিং৷ পাঁচকুলা-চণ্ডীগড় সীমান্তের কাছে এক আইটি পার্ক থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়৷

পুলিশের সন্দেহ, শুক্রবার পাঁচকুলায় যে হিংসা ছড়িয়েছিল, তার পিছনে এদের হাত ছিল৷ পুলিশের ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল ও পি মিশ্র জানিয়েছেন, এই ৬ জনের কাছ থেকে ৭.৫৫ মিমি পিস্তল ও একটি ক্যান পাওয়া গেছে৷ এই ক্যান পেট্রোল, ডিজেল জাতীয় জ্বালানী রাখার কাজে ব্যবহৃত হত৷ এছাড়া একটি লোহার রড, লাঠি ও ২৫টি তাজা কার্তুজ পাওয়া গেছে৷

ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৪৭ (হিংসা ছড়ানো), ১৪৮ (হিংসা ছড়ানো ও হত্যার অস্ত্র রাখা), ১৪৯ (বেআইনি কাজ) ও ১৮৮ ধারায় অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়েছে৷ পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল তজিন্দর সিং লুথারা জানিয়েছেন, অভিযুক্তদের কাছ থেকে যে ক্যানটি উদ্ধার করা হয়েছে, সেটি সম্পূর্ণ খালি ছিল৷ এছাড়া অভিযুক্তদের শরীরে জায়গায় জায়গায় পুড়ে যাওয়ার চিহ্নও পাওয়া গেছে৷