স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: গত ২৩ শে আগস্ট ২০১৮ সালে সকাল ৮ টার সময় হঠাৎই কেপে ওঠে গোটা এলাকা। ঘটনাটি ঘটেছিল পশ্চিম মেদিনীপুর মকরম বাজারে তৃণমূল কংগ্রেসের পার্টি অফিসে।

সেই সময় পার্টি অফিসে উপস্থিত ছিলেন বিকাশ ভূঁইয়া, বিমল চৌধুরী, এবং সুদীপ্ত ঘোষ নামে স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা। পার্টি অফিসে উপস্থিত থাকা সকলেই বিস্ফোরণে মারা যান। ঘটনার তদন্ত শুরু করে পুলিশ। কিন্তু দীর্ঘ সময় কেটে গেলেও পুলিশ সঠিক তদন্ত করছে না, এই অভিযোগে কলকাতা হাই কোর্টে একটি পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার মামলা দায়ের করেন বিস্ফোরণের মৃত সুদীপ্ত ঘোষের স্ত্রী সুপ্রিয়া ঘোষ সামন্ত।

আরও পড়ুন : লোকসভায় জোট ভেঙে লড়াইয়ের পথে বাম-কংগ্রেস

শুক্রবার মামলার শুনানিতে সুপ্রিয়া দেবীর পক্ষের আইনজীবী জয়ন্ত নারায়ন চট্টোপাধ্যায় আদালতে জানান তাঁর মক্কেল প্রতি মুহূর্তে আতঙ্কে রয়েছেন। তিনি অভিযোগ করেন পুলিশ সঠিক তদন্ত করছে না৷ পরিবারের একমাত্র উপার্জন করা মানুষটি বিস্ফোরণে মারা গিয়েছেন। তার দেড় বছরের একটি সন্তান রয়েছে৷ প্রায় অনাহারে দিন কাটছে তাঁদের৷ তাই ক্ষতিপূরণের আবেদন জানানোর পাশাপাশি তার নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার আবেদন জানান আদালতে।

আইনজীবী জয়ন্ত বাবু আরও বলেন এই বিস্ফোরণের ঘটনার অভিযোগকারী দু জন। মৃত বিকাশ ভুঁইয়া আত্মীয় দুর্গা চরণ পাত্র থানায় অভিযোগ করার পর থেকেই তিনি নিখোঁজ হয় যান। এবং পরে তাঁর দেহ পাওয়া যায়। বর্তমানে ঘটনার একমাত্র সাক্ষী সুপ্রিয়া দেবী। তাই তাঁর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করার আবেদন জানানো হয় আদালতে।

আরও পড়ুন : কাশ্মীরে জঙ্গি অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছে জইশ: গোয়েন্দা রিপোর্ট

পাশাপাশি এই ঘটনার সঠিক তদন্তের জন্য নিরপেক্ষ তদন্তের জন্য এসআইটি গঠন করা হোক বলেও আবেদন জানান সুপ্রিয়া দেবীর আইনজীবী।সরকারি আইনজীবী আদালতে জানান তদন্ত চলছে৷ এর পরই বিচারপতি দেবাংশু বসাক উষ্মা প্রকাশ করে বলেন ঘটনার এতদিন হয় যাওয়ার পরও কেন অভিযুক্ত গ্রেফতার হলো না? অবিলম্বে অভিযোগকারিনীকে পুলিশি নিরাপত্তা ব্যবস্থা করে সাত দিনের মধ্যে পুলিশি রিপোর্ট তলব করেন বিচারপতি।