মুম্বই: ভিন জাতের ছেলেকে বিয়ে করেছিল কিশোরী। সেই অপরাধে জামাই এবং মেয়ের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দিল বাবা এবং দুই কাকা।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের আহমেদনগর জেলার একটি গ্রামে। আক্রান্ত ওই দম্পতির নাম- মঙ্গেশ র‍্যনসিং এবং রুক্মিনী। তাঁদের বয়স যথাক্রমে ২৩ এবং ১৯।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মাস ছয়েক আগে প্রমের সম্পর্ককে পরিণতি দেয় এই যুগল। নিজেরাই বিয়ে করে। যদিও এই বিয়েতে আপত্তি ছিল রুক্মিনীর পরিবারের। ভিন জাতের ছেলের সঙ্গে পরিবারের মেয়ের বিয়ে কিছুতেই মেনে নিতে পারেনি। সেই কারণে ক্ষোভ ছিলই।

মেয়ের উপরে রাগ থেকেই জামাই এবং মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কের পাঠ চুকিয়ে ফেলেছিল রুক্মিনীর পরিবার। এভাবেই চলছিল। কিন্তু তাল কাটল গত ৩০ এপ্রিল। ওই দিন স্বামী মঙ্গেশের সঙ্গে ঝামেলা করে বাপের বাড়ি চলে যায় রুক্মিনী। এর দিন দুই পরে স্ত্রিকে ফিরিয়ে নিতে শ্বশুরবাড়িতে যান মঙ্গেশ।

তখনই ঘটে বিপত্তি। ওই দম্পত্তির গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয় রুক্মিনীর বাবা এবং দুই কাকা। এরপরে প্রশিদের উদ্যোগে জখম দুই ব্যক্তিকে স্থানিয় হাসপাতালে ভরতি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদের সাসুন জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, ওই দম্পতির শরীরের প্রায় ৭০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে।

এই ঘটনাত রুক্মিনীর বাবা এবং দুই কাকার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত ওই তিন ব্যক্তি হল- রুক্মিনীর বাবা রামা ভারতীয় এবং কাকা সুরেন্দ্র ভারতীয় এবং ঘনশ্যাম সরোজ। এই তিন জনের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

মহারাষ্ট্রের আহমেদনগর জেলায় এই ধরণের ঘটনা নতুন কিছু নয়। এর আগেও বহুবার এই ধরণের ঘটনার সাক্ষী থেকেছে এই জেলা। ২০১৩ সালে তিন দলিত যুবককে মেরে সেপটিক ট্যাঙ্কে দেহাংশ ফেলে দেওয়ার মতো নৃশংস ঘটনা ঘটেছিল।