তৃণমূল করার অপরাধে দম্পতিকে বেধড়ক মারধর

0

ইংরেজবাজার: তৃণমূল করার অপরাধে এক দম্পতিকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ  স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্যা তার অনুগামীদের বিরুদ্ধে। শুক্রবার গভীর রাতে এই ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় ওই দম্পতিকে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ  হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে৷ এদিনের এই ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই মালদহের কালিয়াচক থানার মোথাবাড়ি এলাকার মহেশ্বপাড়ায় তীব্র উত্তেজনা তৈরি হয়৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আহত দম্পতি শঙ্কর দাস ও দুলালী দাস  গত বিধানসভা ভোটে বামফ্রন্ট ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করেন। অভিযোগ, তৃণমূলে যোগদানের পর থেকেই স্থানীয় সদস্যা তাপসী ঘোষ ও তার অনুগামীরা শঙ্কর দাস ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের নানারকম হুমকি দিয়ে আসছিল। শঙ্কর দাসের অভিযোগ, গত বিধানসভা ভোটে মোথাবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রে জোটের জয়ের পর এই অত্যাচারের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। গতকাল সন্ধ্যায় স্থানীয় সিপিএমের পঞ্চায়েত সদস্যা তাপসী ঘোষের স্বামী সুজিত ঘোষের সঙ্গে তুমুল বিবাদ বাধে৷  অভিযোগ, এরপর গভীর রাতে সুজিত ঘোষ তারপর দলবল তৃণমূল কর্মী শঙ্কর দাসের চড়াও হয়ে শঙ্কর দাস ও তাঁর স্ত্রীকে বেধড়ক মারধর করে। শঙ্কর দাস ও তাঁর স্ত্রী গুরুতর আহত অবস্থায় বর্তমানে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনার লিখিত অভিযোগ কালিয়াচক থানায় তদন্তে পুলিশ। তবে, এই ঘটনায় পুলিশ এখনও কাওকে গ্রেফতার করতে পারেনি বলে জানা গিয়েছে।

অন্যদিকে, বামফ্রন্ট নিজেদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক রাজনৈতিক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকা জুড়ে।