তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: বিষয় মারণ ভাইরাস ‘করোনা’। গুজব না ছড়ানোর আর্জি বারবার জানানো হচ্ছে সরকারের তরফ থেকে। তা সত্ত্বেও বিভিন্ন অঞ্চলে ছড়াচ্ছে নানা ধরনের গুজব। এবার সেই তালিকায় বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর। করোনা নিয়ে অদ্ভুত গুজব ছড়ালো বাঁকুড়ার অন্যতম প্রাচীণ পুর।

শনিবার সকাল থেকেই শহরের ৮ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার গোপালপুর বাগদী পাড়ার বাসিন্দারা বাড়ির তুলসী তলা, দরজার সামনে এমনকি হরিমন্দির সংলগ্ন এলাকার মাটি খুঁড়ে ‘পোড়া কয়লা খুঁড়ে তাতে গঙ্গাজল মিশিয়ে’ কপালে টিপ নিচ্ছেন। পরে তুলসী আর থানকুনি পাতা খাচ্ছেন অনেকে। এতেই নাকি করোনা ভাইরাসের আক্রমণ থেকে রক্ষা মিলবে। কেউ নাকি এই স্বপ্নাদেশ পেয়েছেন। কিন্তু কে সেই ব্যক্তি যিনি স্বপ্নাদেশ পেয়েছেন, তার সদুত্তর দিতে পারেননি ওই এলাকার কেউই। আর এই গুজব ছড়িয়ে পড়ছে দ্রুত। অবশ্যই এর কোনও বিজ্ঞানসম্মত ভিত্তি নেই।

স্থানীয় বাসিন্দা মাম্পি বাগদী, টুম্পা বাগদীরা বলেন, ‘কেউ এই বিষয়ে স্বপ্নাদেশ পেয়েছেন শুনে আমরাও নির্দিষ্ট জায়গার কয়লা খুঁড়ে তাতে গঙ্গাজল মিশিয়ে কপালে টিপ নিয়েছি।’ বিশ্বজুড়ে চলা করোনা আতঙ্ক থেকে মুক্তি পেতেই তারা এই কাজ করেছেন বলে জানান।

বিষ্ণুপুর পুরসভার আট নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মমতা কুণ্ডুকে এবিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। পুরোটাই মানুষের অন্ধবিশ্বাস বলে তিনি দাবি করেন। এই গুজব বন্ধ করতে কি ব্যবস্থা নেওয়া হবে তা জানানো হয়নি।

এবিষয়ে ভারতীয় বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সৌম্য সেনগুপ্ত বলেন, এই ধরণের গুজব ছড়ানো দণ্ডনীয় অপরাধ। প্রশাসনের উচিৎ দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া বলেও জানান তিনি।