ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: রাতের অন্ধকারে করোনা আক্রান্ত এক ব্যক্তির মৃতদেহ সৎকার করার অভিযোগ। আর এই অভিযোগকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় বাঁকুড়ার জয়পুর থানার চেকপোষ্ট। বুধবার রাতের এই ঘটনায় পুলিশ-জনতা খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে ঝায়। দুপক্ষের হাতাহাতিতে একাধিক পুলিশ কর্মী আহত হন বলে খবর। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়।

যদিও পরিস্থিতি এখনও আয়ত্তে আসলেও থমথমে অবস্থা গোটা এলাকার। এলাকায় মোতায়েন রয়েছে পুলিশ। স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার ওন্দা কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জয়পুরের রাউৎখণ্ডের এক ব্যক্তি মারা যান। পুলিশ ও প্রশাসনের শীর্ষ আধিকারিকদের উপস্থিতিতে জয়পুরের জঙ্গলে সেই কোভিড আক্রান্তের মৃতদেহ সৎকার করার উদ্যোগ নেওয়া হয়।

মুহূর্তের মধ্যে এই খবর ছড়িয়ে পেয়ে জঙ্গল লাগোয়া গ্রামগুলিতে। এরপরেই এলাকার মানুষজন ছুটে আসেন। জয়পুর থানার চেকপোষ্টে জড়ো হন। করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ কোনও ভাবেই তাঁদের এলাকায় সৎকার করা চলবে না। এই দাবি নিয়ে তাঁরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। পাশাপাশি পথ অবরোধ করেন তাঁরা। দীর্ঘক্ষণ ধরে চলে এই অবরোধ। যার জেরে আটকে যায় সমস্ত যান চলাচল।

যদিও পুলিশের তরফে বারবার উত্তেজিত এলাকার মানুষকে বোঝানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু কে কার কথা শোনে! পুলিশ অবরোধ তুলতে গেলে লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ। পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করলে পালটা প্রতিরোধ তৈরি করেন গ্রামবাসীরাও। পুলিশকে লক্ষ্য করে শুরু হয় ইট-বৃষ্টি।

মুহূর্তে রণক্ষেত্র চেহারা নেয় গোটা এলাকা। পুলিশ-জনতা খণ্ডযুদ্ধে একাধিক পুলিশ কর্মী ও কয়েকজন গ্রামবাসী আহত হয়েছেন বলে খবর।

গ্রামবাসীদের দাবি, তাদের এলাকায় করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ সৎকার হলে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেকারণেই কোনও ভাবেই করোনা মৃতদেহ সৎকার করতে দেওয়া যাবে না বলে তারা দাবি করেন। এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে। মোতায়েন রয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা