জেনেভা: কয়েকশো এমন বিজ্ঞানী রয়েছেন, যারা দাবি করেন করোনাভাইরাস বাতাসের মাধ্যমে সংক্রামিত হতে পারে। ডব্লুএইচও-কে এ ব্যাপারে বিধি সংশোধনের আহ্বান জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

প্রথমে ডাব্লুএইচও জানিয়েছিল, কোভিড ১৯ নাক, মুখের ফাঁকা দিয়ে প্রবেশ করে। কাশি, হাঁচি বা কথা বললে এগুলি আক্রান্ত ব্যক্তির দেহ থেকে বাইরে বেরিয়ে আসে।

পরের সপ্তাহে এ বিষয়ে ২৩৯ জন গবেষক একটি জার্নাল প্রকাশ করতে চলেছেন বলে জানা যাচ্ছে। মনে করা হচ্ছে, সেখানে এ বিষয়ে উল্লেখ থাকবে। ওই রিসার্চ পেপারে ৩২ দেশের গবেষকরা লিখবেন বা মতানত দেবেন।

আপাতত জানা গিয়েছে এ ব্যাপারে হু এখনও কোনও জবাব দেয়নি। বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন, করোনাভাইরাস বায়ু বাহিত হয়ে মানুষকে সংক্রামিত করতে পারে। বিশেষ করে শ্বাসকষ্টের রোগীর পক্ষে করোনা বায়ু বাহিত হলে তা আরও ভয়ঙ্কর।

যদিও হু জানিয়েছে, করোনা বায়ুবাহিত হওয়ার যে সমস্ত প্রমাণ উঠে এসেছে, তা এখনও এই তত্বকে বিশ্বাস করার জন্য যথেষ্ট নয়।

উল্লেখ্য, দেশে ইতিমধ্যে ব্যাপক হারে বেড়েছে করোনা। রবিবারই রাশিয়াকে পিছিয়ে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে ভারত। রবিবার সন্ধেয় ভারতের কয়েকটি রাজ্য জুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ লক্ষ ৯০ হাজার। এই রোগের জেরে এখনও পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ১৯ হাজার ২০০ জন। অন্যদিকে জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের দেওয়া তথ্য অনুসারে এখনও পর্যন্ত রাশিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লক্ষ ৮০ হাজার ২৮৩ জন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ