ঢাকা: ‘উপহার হিসেবে টিকা পাঠানোর জন্য আমি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ জানাই।’ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

বৃহস্পতিবার ভারত থেকে এসেছে করোনা টিকার চালান। উপহার হিসেবে ২০ লক্ষ ডোজের এই টিকা চালান ঢাকায় পাঠিয়েছে ভারত। ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দেরাইস্বামী টিকা তুলে দেন বাংলাদেশ সরকার কে।

বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় এই অনুষ্ঠানে ছিলেন বিদেমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন ও বিদেশ প্রতিমন্ত্রী এম শাহরিয়ার আলম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতে উৎপাদিত অক্সফোর্ডের টিকা উপহার হিসেবে বাংলাদেশে পাঠানোর জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ক্রয় করা টিকা পরিকল্পনা অনুযায়ী শিগগিরই ভারত থেকে আসবে।

‘প্রতিবেশী প্রথম’ নীতির আওতায় বাংলাদেশকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছিলেন, ভারতে টিকা উৎপাদন করার সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশকে দেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) জানাচ্ছে, চলতি মাসেই ভারত থেকে ক্রয় করা টিকার ৫০ লাখ ডোজ আসবে। আগামী ছয় মাসের মধ্যে প্রায় তিন কোটি ডোজ টিকা আসার কথা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।