বেজিং: বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের জেরে কার্যত ক্ষতিগ্রস্ত একাধিক দেশ। অর্থনৈতিক ক্ষতির পাশাপাশি একাধিক দেশ থেকে মৃতের হারও ক্রমেই বেড়েছে। তারই সঙ্গে একাধিক দেশে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে প্রতিষেধক তৈরির গবেষণা। কিন্তু তার মধ্যে সম্প্রতি সামনে এল এক নয়া তথ্য।

দাবি করা হয়েছে, চিনের ইউহান ল্যাব থেকে ছড়িয়ে পড়ে এই ঘাতক ভাইরাস। আমেরিকার সংবাদমাধ্যমের তরফে সামনে আনা হয়েছে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য।

জানা গিয়েছে, ইউহানের সবজি বাজারকে প্রাথমিক ভাবে এই ভাইরাসের আঁতুড়ঘর হিসেবে ধরা হয়েছিল। মনে করা হয়েছিল বাদুড় থেকে ছড়িয়েছে এই ভাইরাস মানুষের মধ্যে। কিন্তু পরবর্তীতে দাবি করা হয়েছে ল্যাবে তৈরি করা হয়েছে এই ভাইরাস। আর সেখান থেকেই কোনওভাবে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ে।

এর কিছু আগে প্রকাশিত হওয়া এক রিপোর্ট থেকে সামনে আসে নয়া তথ্য। জনা গিয়েছে প্রায় দুই বছর আগেই চিনের মার্কিন দূতাবাসের তরফে এই ইউহান ল্যাবের বায়ো নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন। কারণ ওই ল্যাবে মারাত্মক ভাইরাস এবং সংক্রমণ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা চালানো হচ্ছিল বলে দাবি। তবে এই খবর সামনে আসাতে আন্তর্জাতিক নিরাপত্তার খাতিরে ফের প্রশ্নের মুখে পড়বে চিন এমনটা নিশ্চিত ভাবে মনে করছেন আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রের বিশেষজ্ঞরা।

প্রাথমিক ভাবে জানা যায় ওই ল্যাবের এক ইন্টার্ন এর বন্ধু প্রথম সংক্রমিত হওয়াতে তাকে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছিল। কিন্তু কিভাবে ওই ভাইরাস ল্যাবের বাইরে এল তা নিয়ে এখনও পর্যন্ত সামনে আসে নি কোন তথ্য। মনে করা হচ্ছে সেখান থেকেই কোন ভাবে ইউহানের ওই বাজারে ছড়িয়ে পড়ে। আর তারপর সেখান থেকে গোটা বিশ্বে তা মহামারীর রূপ নেয়।

ইতিমধ্যে চিনের এই পদক্ষেপ নিয়ে যথেষ্ট সমালোচনা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পাশপাশি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সমালোচনা করেছেন তিনি। আর এই কারণে কার্যত আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে যথেষ্ট সমালোচিত চিন। একই সঙ্গে প্রভাব পড়েছে তার ব্যবসাতেও।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV