কলকাতা: বাংলায় একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৩৫ জন৷ এই পর্যন্ত এটাই একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা৷ নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ১৭ জনের৷ গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ১১ জনে৷

শনিবার রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিনে প্রকাশ, রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় অর্থাৎ শুক্রবার থেকে শনিবার সকাল ৯ টা পর্যন্ত নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩৫ জন৷ গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ৪২৭ জনে৷ সেটাই ছিল সর্বোচ্চ রেকর্ড৷ কিন্তু সেই রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়ল বাংলা৷

নতুন যে ৪৩৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন,এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সংখ্যা কলকাতায়৷ সেখানে গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯৪ জন৷ এরপর হূগলি জেলা, এখানে নতুন করে আক্রান্ত ৮২ জন৷

এছাড়া উত্তর ২৪ পরগনায় ৬০ জন,হাওড়ায় ৫৬ জন,পুরুলিয়ায় ৪৩ জন,দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ১৮ জন,পশ্চিম মেদিনীপুর ১০ জন,নদিয়ায় ১২ জন, মালদা ১০ জন,জলপাইগুড়ি ১১ জন৷ ১০ জনের নিচে আক্রান্ত জেলা হল পূর্ব বর্ধমান,পূর্ব মেদিনীপুর, বীরভূম,মুর্শিদাবাদ,উত্তর দিনাজপুর,দার্জিলিং ও কোচবিহার৷

বাংলায় এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৭ হাজার ৭৩৮ জন৷ তবে নতুন করে ছাড়া পেয়েছেন ২০৭ জন৷ ফলে মোট সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ৩ হাজার ১১৯ জন৷ যা শতাংশের হিসেবে ৪০.৩০ শতাংশ৷

গত ২৪ ঘন্টায় ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৩৮৩ জন৷ এর মধ্যে কো মর্বিডিটির কারণে মৃত্যু হয়েছে ৭২ জনের। তবে সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ২৩৬ জন৷

মৃত ১৭ জনের মধ্যে কলকাতারই ৯ জন৷ এছাড়া উত্তর ২৪ পরগনার ৪ জন,দক্ষিণ ২৪ পরগনার ১ জন,হাওড়ার ১ জন,পূর্ব মেদিনীপুরের ১ জন এবং নদিয়ার ১ জন৷

শুক্রবার থেক শনিবার সকাল ৯ টা পর্যন্ত ৯,৭৭১ টি টেস্ট হয়েছে৷ ফলে এই পর্যন্ত মোট টেস্ট হয়েছে ২ লক্ষ ৬১ হাজার ২৮৮ জন৷ প্রতি মিলিয়নে ২,৯০৩ জন৷ যা শতাংশের হিসেবে ২.৯৬ শতাংশ৷ বর্তমানে রাজ্যে সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে ৪২টি পরীক্ষাগারে পরীক্ষা করা হচ্ছে।

বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে ৪,২৩৬ জনের৷ রাজ্যের মোট ৬৯ টি কোভিড হাসপাতলে ৮৭৮৫ টি বেড রয়েছে আইসিইউ বেড আছে ৯২০টি। ভেন্টিলেটর রয়েছে ৩৯২টি।

শনিবার রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিনের তথ্য অনুযায়ী, শুরু থেকে এই পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যাটা ২ লক্ষ ৫৭ হাজার ১৫৬ জন৷ তাদের মধ্যে হোম কোয়ারেন্টাইন শেষ করেছেন ১ লক্ষ ৪ হাজার ৯৮৩ জন৷ ফলে বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১ লক্ষ ৫২ হাজার ১৭৩ জন৷

এছাড়া সরকারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৬৩ হাজার ৪৫০ জন৷ বর্তমানে ৫৮২ টি সরকারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রয়েছেন মাত্র ২২ হাজার ৬৬৯ জন৷

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প