ওয়াশিংটন ও লন্ডন: বিশ্ব কাঁপছে করোনার মারণ হামলায়। ২ লক্ষ পেরিয়ে মৃত্যু মিছিল থামার কোনও লক্ষণ নেই। এই অবস্থায় টিকা তৈরির গোপন গবেষণাপত্র চুরি করার নিঃশব্দ কাজে মত্ত বিভিন্ন দেশের গুপ্তচরেরা। বিবিসি রিপোর্টে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের টিকা তৈরির গবেষণা নিয়ে সূত্র খুঁজছে একাধিক বিদেশি গুপ্তচর সংস্থা। এতে উদ্বিগ্ন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনের মতো দেশ। গবেষণাপত্র চুরি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলেই মনে করছেন মার্কিন গোয়েন্দা কর্তারা।

আরও কিছু প্রাক্তন গোয়েন্দা কর্তার ধারণা, মার্কিন গুপ্তচর বিশেষ করে সিআইএ এবং ইজরায়েলি চর সংস্থা মোসাদেপ বিশ্বজোড়া নেটওয়ার্ক লেগে রয়েছে একই কাজে। মারণ করোনার জীবাণু কোভিড-১৯ এর টিকা আবিষ্কার করতে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা চলছে। চিন, আমেরিকা, ইংল্যান্ড, জার্মানি, জাপান, ইতালি সহ বিভিন্ন দেশের গবেষকরা দিন রাত এক করে টিকা বের করতে মগ্ন।

ইতিমধ্যে পরীক্ষামূলক টিকা প্রয়োগ করা হয়েছে মানব দেহে ও বিভিন্ন প্রাণীকে। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থার খবর, গোপনে টিকা আবিষ্কারের তথ্যসূত্র বিরাট অংকের টাকার লেনদেন করতে প্রস্তুত গুপ্তচর সংস্থা। বিবিসি জানাচ্ছে, এই লেনদেনে গবেষক, বহুজাতিক ওষুধ বিপনন সংস্থা ও কিছু দেশের সরকার সবাই জড়িত।

আমেরিকার বিভিন্ন সংস্থার আশঙ্কা, তাদের গবেষণা রিপোর্ট চিন সরকার হাতিয়ে নিতে মরিয়া। আবার মার্কিন বিরোধী জোটের বিভিন্ন দেশের আশঙ্কা, তাদের রিপোর্ট হাতাতে মরিয়া ট্রাম্প সরকার। কে করবে বাজিমাত, কোন দেশের কোষাগার ভরে উঠবে করোনা টিকার দৌলতে-তাই বিলিয়ন ট্রিলিয়ন ডলার মূল্যের প্রশ্ন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.