স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এক দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ফের পাঁচশো ছাড়াল রাজ্যে। শনিবার বিকেলে প্রাপ্ত রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, একদিনে বাংলা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫২১ জন। শুক্রবার এই সংখ্যাটা ছিল ৫৪২। এ দিন সেই সংখ্যাটা কিছুটা কমে ৫২১ হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন ১৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ২৫৪ জন। আশার কথা গত চব্বিশ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন মোট ২৫৪ জন করোনা রোগী। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন মোট ১০ হাজার ৭৮৩ জন রোগী।সুস্থতার হার ৬৪.৫৬ শতাংশ। রাজ্যে এ যাবৎ লক্ষ ৫৮ হাজার ৩৪৩ জন মানুষের নমুনা পরীক্ষা সম্ভব হয়েছে। চব্বিশ ঘণ্টায় লালারস পরীক্ষা হয়েছে ৯ হাজার ৫৪৮ জনের।

ইতিমধ্যে বাংলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ হাজার ছুঁইছুঁই। প্রসঙ্গত, এর মধ্যে বাংলায় সক্রিয় আক্রান্ত ৫ হাজার ২৯৩ জন। এদিকে, নতুন করে যে ১৩ জন মারা গিয়েছেন, তার মধ্যে কলকাতার বাসিন্দা রয়েছেন ৫ জন। উত্তর ২৪ পরগনায় ৪, হাওড়ায় ২, হুগলি এবং মালদহ জেলায় ১ জন করে মারা গিয়েছেন।

উত্তর ২৪ পরগনায় আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই হাজার ছাড়িয়েছে। হাওড়ার আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ৪৮১। এদিন সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছিল, দেশের মোট করোনা আক্রান্তের ৮৫ শতাংশ আটটি রাজ্যে ছড়িয়ে রয়েছে। এই আটটি রাজ্যেই মৃত্যুর হার বেশি।

উদ্বেগজনক তথ্য হল, এই সাত রাজ্যের তালিকায় নাম রয়েছে পশ্চিমবঙ্গেরও। আর সেই সেই উদ্বেগ যে একেবারে অমূলক নয়, তা শনিবারের পরিসংখ্যানে স্পষ্ট। তবে এদিনের বুলেটিনে দেখা গিয়েছে উত্তরবঙ্গের সংক্রমণ গত কয়েক দিনের তুলনায় কিছুটা কম।

উত্তরবঙ্গে গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রামিতের হদিশ মিলেছে মালদহে। সেখানে ২০ জন এবং দার্জিলিংয়ে ১২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। কালিম্পং এবং দুই দিনাজপুরে নতুন কোনও পজিটিভ কেস নেই। দক্ষিণবঙ্গের দুই জেলা পুরুলিয়া ও বাঁকুড়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণের কোনও হদিশ মেলেনি।

পুরুলিয়ায় এই মুহূর্তে এক জনের শরীরে করোনাভাইরাস সক্রিয় রয়েছে। ঝাড়গ্রাম করোনা শূন্য। বাঁকুড়ায় নতুন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বাঁকুড়ায় আক্রান্ত হয়েছেন পাঁচ জন ও পশ্চিম মেদিনীপুরে এক জন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ