কলকাতা: বাংলায় লাগাম ছাড়া সংক্রমণ ও মৃত্যু৷ একদিনে আক্রান্ত প্রায় চার হাজার৷ দৈনিক মৃতের রেকর্ড ভেঙ্গে, একদিনে করোনার বলি ৬৪ জন৷ তার উপর পুজোর বাজারের ভিড় আরও চিন্তা বাড়াচ্ছে৷

রবিবার রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন বুলেটিনের তথ্য অনুযায়ী, রাজ্যে একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত ৩,৯৮৩ জন৷ প্রায় চার হাজার৷ শনিবার ছিল ৩,৮৬৫ জন৷ প্রতিদিনই প্রায় ১০০ জন করে বাড়ছে৷

এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যাটা আগামী ১০ দিনে সংখ্যাটা ৫ হাজার ছাড়িয়ে যাবে৷ তবে উৎসব শেষে সেটা আরও ভয়ঙ্কর হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷

এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় ৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ এটাই এই পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ মৃতের সংখ্যা৷ যার ফলে মোট মৃতের সংখ্যা ৬ হাজার পেরিয়ে গেল৷ তথ্য অনুযায়ী,৬ হাজার ৫৬ জন৷ প্রতিদিনই বাড়ছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা৷ এদিনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী,৩৩ হাজার ৯২৭ জন৷ শনিবার ছিল ৩৩ হাজার ১২১ জন৷ তুলনামূলক ৮০৬ জন ৷

যা একদিনে নতুন রেকর্ড৷ এক সময় অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা কমতে কমতে ২৩ হাজারে নেমে এসেছিল৷ এদিনও নতুন আক্রান্তের তুলনায় সুস্থ হয়ে উঠার সংখ্যাটা কম৷ একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩,১১৩ জন৷ শনিবার ছিল ৩,১৮৩ জন৷ সব মিলিয়ে সুস্থ হয়ে উঠার সংখ্যাটা ২ লক্ষ ৮১ হাজার ৫৩ জন৷ সুস্থতার হার কমে ৮৭.৫৫ শতাংশ৷ শনিবার ছিল ৮৭.৬৬ শতাংশ৷

একদিনে যে ৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে কলকাতার ১৩ জন৷ উত্তর ২৪ পরগনার ১৭ জন৷ দক্ষিণ ২৪ পরগনার ৩ জন৷ হাওড়ার ৭ জন৷ হুগলি ৪ জন৷ পশ্চিম বর্ধমান ১ জন৷ পূর্ব বর্ধমান ২ জন৷ পূর্ব মেদিনীপুর ১ জন৷ পশ্চিম মেদিনীপুর ২ জন৷ বীরভুম ৩ জন৷ নদিয়া ২ জন৷ মালদা ২ জন৷

দক্ষিণ দিনাজপুর ১ জন৷ উত্তর দিনাজপুর ৩ জন৷ জলপাইগুড়ি ২ জন৷ আলিপুরদুয়ার ১ জন৷ যদিও বাংলায় একদিনে ৪৩ হাজার ৫২০ টি নমুনা টেস্ট হয়েছে৷ শনিবার ছিল ৪৩ হাজার ৪২৮ টি৷ এই মূহুর্তে মোট টেস্টের সংখ্যা ৩৯ লক্ষ ৯১ হাজার ২৭০ টি৷ প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় টেস্টের সংখ্যা বেড়ে হল ৪৪,৩৪৭ জন৷

এই মুহূর্তে সরকারি এবং বেসরকারি মিলিয়ে রাজ্যে ৯২ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে৷ আরও ৪ টি ল্যাবরেটরি অপেক্ষায় রয়েছে৷ আশা করা যায় ওই ল্যাবরেটরিতে শীঘ্রই টেস্ট শুরু হবে৷ বাংলায় এই মূহুর্তে ৯৩ টি সরকারি এবং বেসরকারি হাসপাতালে আইসোলেশন শয্যা তৈরি করা হয়েছে৷

এর মধ্যে সরকারি ৩৮ টি হাসপাতাল ও ৫৫ টি বেসরকারি হাসপাতাল রয়েছে৷ হাসপাতালগুলিতে মোট কোভিড বেড রয়েছে ১২,৭৫১ টি৷ আইসিইউ শয্যা রয়েছে ১,২৪৩টি, ভেন্টিলেশন সুবিধা রয়েছে ৭৯০টি৷ কিন্তু সরকারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার রয়েছে ৫৮২টি৷

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।