নয়াদিল্লি:  বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে। রাস্তায় বের হতে ভয় পাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। ভয়াবহ অবস্থা চিনে, ইরান এবং ইতালিতে। এই সমস্ত জায়গায় ক্রমশ বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। গোটা বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক গ্রাস করেছে সাধারণ মানুষকে। তবে বিজ্ঞানীরা সাধারণ মানুষকে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন। তারা বলছেন, কিছু নিয়ম মেনে চললেই এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কমে যায়। এছাড়া ঘরে বসেই জানা যাবে করোনায় আক্রান্ত কিনা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হলে তার দেহে এর চিহ্ন বা লক্ষণ খুঁজে পেতে অনেকদিন সময় লেগে যায়। সাধারণত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জ্বর বা কাশি নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার আগেই তার ফুসফুসের ৫০% ফাইব্রোসিস (সূক্ষ্ম অংশুসমূহের বৃদ্ধি) তৈরি হয়ে যায়, যার মানে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে। তাইওয়ানের বিশেষজ্ঞরা কেউ আক্রান্ত হয়েছেন কি না, সেটা নিজে নিজেই পরীক্ষা করার একটি পদ্ধতি আবিষ্কার করেছেন, যেটা কেউ প্রতিদিন সকালে উঠেই কয়েক সেকেন্ডে একবার পরীক্ষা করে নিশ্চিন্ত হতে পারেন। পরীক্ষাটা হলো:

পরিচ্ছন্ন পরিবেশে লম্বা একটা শ্বাস নিয়ে সেটাকে দশ সেকেন্ডের কিছুটা বেশি সময় ধরে আটকে রাখুন। যদি এই দম ধরে রাখার সময়ে আপনার কোনও কাশি না আসে, বুকে ব্যথা বা চাপ অনুভব না হয়, মানে কোনও প্রকার অস্বস্তি না লাগে, তার মানে আপনার ফুসফুসে কোনও ফাইব্রোসিস তৈরি হয়নি অর্থাৎ কোনও ইনফেকশন হয়নি, আপনি সম্পূর্ণ ঝুঁকিমুক্ত আছেন।

যদিও জাপানের ডাক্তাররা আরেকটি অত্যন্ত ভালো উপদেশ দিয়েছেন যে, সবাই চেষ্টা করবেন যেন আপনার গলা ও মুখের ভেতরটা কখনো শুকনো না হয়ে যায়, ভেজা ভেজা থাকে। তাই প্রতি পনেরো মিনিট অন্তর একচুমুক হলেও জল পান করুন। কারণ, কোনও ভাবেই ভাইরাসটি আপনার মুখ দিয়ে শরীরে প্রবেশ করলেও সেটি জলের সঙ্গে পাকস্থলীতে চলে যাবে, আর পাকস্থলীর এসিড মুহূর্তেই সেই ভাইরাসকে মেরে ফেলবে।

অন্যদিকে, করোনা ভাইরাস নিয়ে অযথা আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। ভারত করোনা মোকাবিলায় পুরোপুরিভাবে তৈরি রয়েছে, সংসদে বিবৃতি দিয়ে জানালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পরিস্থিতির উপর নজর রাখছেন বলেও এদিন জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার করোনা ভাইরাস নিয়ে সংসদে বিবৃতি পেশ করেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ভারতে এখনও পর্যন্ত ২৯ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস মিলেছে। ১৩ ভারতীয়র শরীরে মিলেছে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি। একইসঙ্গে ১৬ ইতালিয়র শরীরেও করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে। ইতালি থেকে আসা ১৬ জনের শরীরে মিলেছে ওই মারণ ভাইরাস।

বৃহস্পতিবার সংসদে করোনা ভাইরাস নিয়ে বিবৃতি দিতে গিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাস নিয়ে অযথা ভারতীয়দের আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। করোনা মোকাবিলা ভারত পুরোপুরিভাবে তৈরি রয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই সব ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।