file image

নয়াদিল্লি: মারণ করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে জারি লড়াই। সকাল পর্যন্ত দেশে ১৯৬৫ নোভেল করোনা ভাইরাস এ আক্রান্ত হয়েছেন। করোনা ভাইরাসের আক্রমণে দেশে মৃত বেড়ে ৫০। স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে, এখন পর্যন্ত আক্রান্তদের মধ্যে ১৫১ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

যুদ্ধকালীন তৎপরতায় মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই জারি গোটা দেশজুড়ে। একদিকে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় একের পর এক পদক্ষেপ করছে কেন্দ্রীয় সরকার। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় সুপারিশ মেনে যথোপযুক্ত পদক্ষেপ করছে রাজ্য সরকারগুলি ও দেশজুড়ে লকডাউন মেনে চলতে বারবার আবেদন জানানো হচ্ছে নাগরিকদের কাছে। টিভি চ্যানেল সহ সোশ্যাল মিডিয়াগুলিতে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের তরফে চলছে সতর্কতামূলক প্রচার।

একাধিক সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নিলেও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত গোটা দেশে ১৯৬৫ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। মারণ এই ভাইরাসের আক্রমণের জেরে ইতিমধ্যেই ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে করোনায় আক্রান্ত হলেও অনেকেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরছেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, ইতিমধ্যে করণা আক্রান্ত ১৫১ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন।

এখন পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলেছে। মহারাষ্ট্রে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে ৩৩৫ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে । নোভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার নিরিখে মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে কেরল। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত কেরলে ২৬৫ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

একইভাবে তামিলনাড়ুতে ২৩৪, উত্তরপ্রদেশে ১১৩, উত্তরাখণ্ডে ৭, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে ১০, অন্ধ্রপ্রদেশে ৮৬ জন করনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। অসমে নতুন করে করোনার সংক্রমণ বাড়েনি। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত অসমে এক, বিহারে ২৩ ,চণ্ডীগড়ে ১৬ ,ছত্রিশগড়ে ৯, গুজরাটে ৮২ ও গোয়ায় ৫ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত হরিয়ানা ৪৩, হিমাচল প্রদেশের তিন জম্মু-কাশ্মীরে ৬২, ঝাড়খন্ডে এক, কর্নাটকে ১১০, লাদাখে ১৩, মধ্যপ্রদেশের ৯৯ জন করনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

একইভাবে পুদুচেরিতে ৩, পাঞ্জাবে ৪৬, রাজস্থানে ১০৮ ও তেলেঙ্গানায় এখনো পর্যন্ত ৯৬ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গে এখনো পর্যন্ত ৩৭ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ৮ দিনে বাংলায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

Tree-bute: রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও