মুম্বই: ইতিমধ্যে দেশজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫০০। সবথেকে খারাপ অবস্থা মহারাষ্ট্রের। করোনা সংক্রমণে সেই রাজ্যের রোগীর সংখ্যা পৌঁছে গিয়েছে তিন সংখ্যায়। এরই মধ্যে সামনে আসল চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা যাচ্ছে, মহারাষ্ট্রে একই পরিবারের নয়জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের নমুনা পাওয়া গিয়েছে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের সাংলিতে। দ্রুত পরিস্থিতি খারাপ হচ্ছে। গত কয়েকদিন এই পরিবার কাদের সঙ্গে মিশেছে কি করেছে সমস্ত কিছু খোঁজ করা হচ্ছে। যাদের সঙ্গে মিশেছে ইতিমধ্যে বেশ কিছু লোককে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে।

জানা গিয়েছে, প্রথমে ওই পরিবারের চারজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের নমুনা পাওয়া যায়। দ্রুত পরিবারের বাকি সদস্যদের আলাদা করা হয়। সম্প্রতি বাকিদের রক্ত পরীক্ষা করা হলে জানা যায়, পরিবারের বাকি সদস্য অর্থাৎ আরও পাঁচজনের করোনা পজিটিভ। যার মধ্যে একটি পাঁচ বছরের শিশুও রয়েছে। পুরো জেলায় এই একটা পরিবারের নয় জনই করোনায় আক্রান্ত। প্রথমে যে চারজন আক্রান্ত হয়েছিলেন, তারা তীর্থ করতে সৌদি আরব গিয়েছিল। সেখান থেকেই আরও পাঁচজনের শরীরে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানা গিয়েছে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়।

বিষয়টি যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপে। তিনি জানিয়েছেন, নতুন কেসগুলি যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীরা দেখছেন। মহারাষ্ট্রে এই মুহূর্তে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১১৬। যদিও কিছু মানুষ সুস্থও হয়ে যাচ্ছেন। তবে সংখ্যাটা অনেকই কম। খুব শীঘ্রই তাঁদের হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে।

করোনা আতঙ্কে কাঁপছে দেশ। বুধবার সকাল পর্যন্ত দেশজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হলো ৫৬২। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে মারণ করোনার বলি এখনও পর্যন্ত ১১। বুধবার সকালেও তামিলনাড়ুর মাদুরাই এর হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত এক ব্যক্তির মৃত্যুর খবর মিলেছে। মধ্যপ্রদেশের নতুন করে পাঁচ করোনা আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলেছে ইন্দোরে। পাঁচজনের শরীরে মিলেছে মারণ ভাইরাস। তাদের প্রত্যেকটি আইসোলেশন রেখে চিকিৎসা করা হচ্ছে মধ্যপ্রদেশে। বুধবার সকাল পর্যন্ত করোবা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৪।