কলকাতা: বাংলায় মোট মৃতের সংখ্যা ২,৩৭৭ জন৷ এর মধ্যে শুধু কলকাতাতেই মৃত্যু হয়েছে ১,০৫৭ জন৷ মোট আক্রান্ত ৩১ হাজারের বেশি৷ তবে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৪ হাজারের বেশি মানুশ। শনিবারের রাজ্য স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী,শুধু কলকাতাতেই গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ২১ জনের৷

বৃহস্পতিবার ছিল ১৬ জন৷ বুধবার এই সংখ্যাটা ছিল ১৯ জন৷ ফলে এই পর্যন্ত শুধু কলকাতাতেই মৃত্যু হয়েছে ১,০৫৭ জনের৷ এছাড়া কলকাতাতে গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬৭১ জন৷ শুক্রবার ছিল ৬১৫ জন৷ বুধবার ছিল৬১৯ জন৷ মঙ্গলবার ছিল ৭১১ জন৷ তবে এই পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যাটা বেড়ে হয়েছে ৩১ হাজার ৭৫৬ জন৷

তথ্য অনুযায়ী, একদিনে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা একদিনে ৮৮ জন বেড়ে মোট সংখ্যাটা হল ৬,৬৪৫ জন৷ শুক্রবার ছিল ৬,৫৫৭ জন৷ বৃহস্পতিবার ছিল ৬,৫৯৮ জন৷ বুধবার ছিল ৬,৬৩৫ জন৷

একদিনে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ৫৬২ জন৷ ফলে এই পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ২৪ হাজার ০৫৪ জন৷

শনিবারের রাজ্য স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী,বাংলায় একদিনে কিছুটা কমল মৃতের সংখ্যা৷ গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫৮ জনের৷ শুক্রবার ছিল ৬০ জন৷ বৃহস্পতিবার সংখ্যাটা ছিল ৫৬ জনে৷ তবে এই পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ২,৩৭৭ জনের৷ একদিনে আক্রান্ত তিন হাজারের বেশি৷

পরিসংখ্যান অনুযায়ী,গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৩,০৭৪ জন৷ শুক্রবার ছিল ৩,০৩৫ জন৷ বৃহস্পতিবার ছিল ২,৯৯৭ জন৷ তবে এই পর্যন্ত রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১ লক্ষ ১৩ হাজার ৪৩২ জন৷ অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটাও বেড়ে হয়েছে ২৭ হাজার ২১৯ জন৷ একদিনে বেড়েছে ৩৬৯ জন৷

গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ২,৬৪৭ জন৷ শুক্রবার ছিল ২,৫৭২ জন৷ বৃহস্পতিবার ছিল ২৪৯৭ জন৷ তবে এই পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮৩ হাজার ৮৩৬ জন৷ সুস্থ হয়ে উঠার হার বেড়ে হল ৭৩.৯১ শতাংশ৷ শুক্রবার ছিল ৭৩.৫৭ শতাংশ৷ বৃহস্পতিবার ছিল ৭৩.২৫ শতাংশ৷ বুধবার ছিল ৭২.৯৬ জন৷ অর্থাৎ বাংলায় প্রতিদিনই বাড়ছে সুস্থ হয়ে উঠার হার৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও