প্রতীকী ছবি

কলকাতা: বাংলার করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার আশঙ্কা করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি একসময় অনেকটাই নিযন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছিল। তবে এখন পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে।’

পরিযায়ীরা রাজ্যে ঢুকতেই হু হু করে বাড়ছে সংক্রমণ। সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ভিনরাজ্য থেকে আসা ব্যক্তিরাই করোনায় সংক্রমিত হচ্ছেন। ক্রমেই তাঁদের থেকে ছড়িয়ে পড়ছে সংক্রমণ। দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রেই সবচেয়ে বেশি করোনার সংক্রমণ ছড়িয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী মহারাষ্ট্রে বুধবার বিকেল পর্যন্ত নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫৪ হাজার ৭৫৮। মহারাষ্ট্রে এখনও পর্যন্ত করোনায় ১৭৯২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেই মহারাষ্ট্র থেকেই পরিযায়ীদের নিয়ে একের পর এক ট্রেন ঢুকছে বাংলায়। যাঁরা রাজ্যে ফিরছেন তাঁদের অনেকেই করোনা সংক্রমিত।

এব্যাপারে রেলের বিরুদ্ধেও ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘হঠাৎ একসঙ্গে ৩৬ ট্রেন মহারাষ্ট্র থেকে ছাড়া হবে শুনলাম। রেলের কী কোনও দায়িত্ব নেই? সংক্রমণ ঠেকাতে হস্তক্ষেপ চাই।’ মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই ৫ লক্ষ পরিযায়ী রাজ্যে ফিরেছেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের সঙ্গে আলোচনা না করেই একসঙ্গে এত লোককে ঢোকাচ্ছে বলে অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘একসঙ্গে এত লোকের কীভাবে পরীক্ষা করাব? কেন্দ্রের কী কোনও দায়িত্ব নেই? রেড, অরেঞ্জ, গ্রিন জোন মানলে এই সমস্যা হত না।’ এরই পাশাপাশি পরিযায়ীদের ফেরানো নিয়ে বিরোধীদেরও কড়া সমালোচনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ, বিরোধীরা এই বিষয়টি নিয়েও রাজনীতি করছেন।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব