তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান বাঁকুড়ায়। তার মধ্যেও সুখবর আসতে শুরু করেছে। জেলার একমাত্র ওন্দার কোভিড হাসপাতাল থেকে এক দিনে ছাড়া পেলেন ২৩ জন করোনা আক্রান্ত রোগী। বৃহস্পতিবার তাদের হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। সম্ভবত রাজ্যের কোনও হাসপাতাল থেকে এই প্রথম একদিনে এত সংখ্যক করোনা আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়ে ছাড়া পেলেন।

এদিন সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীদের হাতে স্থানীয় প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে পুস্পস্তবক, মিষ্টির প্যাকেট তুলে দেওয়া হয়। উপস্থিত ছিলেন জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ শ্যামল সরেন, স্থানীয় বিধায়ক অরুপ খাঁ সহ ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা। এদিন হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে ছাড়া পাওয়া এক রোগী বলেন, হাসপাতালের পরিষেবা যথেষ্ট ভালো। কোনও অসুবিধা হয়নি। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরতে পেরে তার খুব ভালো লাগছে বলে তিনি জানান।

জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এই মুহূর্তে ৭০ ছাড়িয়ে গেলেও প্রতিদিন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার সংখ্যাটাও নেহাৎ কম নয়। জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ শ্যামল সরেন বলেন, আমাদের জেলায় এখনও গোষ্ঠী সংক্রমণের খবর নেই। বাড়ি ফেরৎ পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যেই মূলত এই সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলে তিনি জানান।

অন্যদিকে, রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত ৩৬৮ জন। ফলে এই পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা মোট ৬৮৭৬ জন৷ বৃহস্পতিবার রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিনে প্রকাশ, বাংলায় নতুন করে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৩৫৫ জন। এর মধ্যে কো মর্বিডিটির কারণে মৃত্যু হয়েছে ৭২ জনের। তবে সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭৫৩ জন৷

নতুন করে যে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে কলকাতারই ৫ জন৷ ফলে শহরে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ২৩৪ জনে৷ এদের মধ্যে কো মর্বিডিটির কারণে মৃত্যু হয়েছে ৫২ জনের৷ হাওড়ার নতুন করে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ এর ফলে সেখানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪২ জন৷ এবং উত্তর ২৪ পরগনার নতুন করে ২ জনকে নিয়ে মৃতের সংখ্যাটা ৪৭৷

এই তিন জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা হল- কলকাতায় গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৯৪ জন৷ শহরে এই পর্যন্ত আক্রান্ত ২,৪৮৮ জন৷ হাওড়ায় নতুন করে আক্রান্ত ৫০ জন,মোট ১২৬৪ জন৷ উত্তর ২৪ পরগনায় একদিনে আক্রান্ত ৪১ জন,মোট ৯১০ জন৷ গত ২৪ ঘন্টায় একজনও হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাননি৷ সারা রাজ্যে উত্তর দিনাজপুর, ঝাড়গ্রাম ছাড়া বাকি সব জেলাতেই নতুন করে আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে৷ অর্থাৎ কলকাতাসহ ২৩ জেলার ২১ জেলাতেই বাড়ল আক্রান্তের সংখ্যা৷

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প