ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, হাবড়া: দিন যত যাচ্ছে ততই উত্তর ২৪ পরগনায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ লম্বা হচ্ছে। এদিকে সংক্রমণ ঠেকাতে উত্তর ২৪ পরগনার কনটেনমেন্ট জোন গুলিতে ফের কঠোর লকডাউন ঘোষনা করা হয়েছে। এরই মধ্যে হাবড়া হাসপাতালের অদূরে এক মাছ ব্যবসায়ীর পরিবারের ৪ সদস্যের করোনা আক্রান্তের খবর প্রকাশ্যে আসতেই নতুন করে করোনাতঙ্ক ছড়িয়েছে হাবড়াতে।

জানা গিয়েছে, দমদমে মামার বাড়িতে থেকে পড়াশোনা করত উত্তর হাবড়ার বাসিন্দা বছর ১৮ র যুবক । ১৭ দিন আগে বাড়িতে ফিরে আসে সে। দিন দশেক আগে তার জ্বর হওয়ায় হাবড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে তার লালারস সংগ্রহ করা হয়। তিন দিন বাদে গত সপ্তাহে এসেছে রিপোর্ট।

তাতে ওই যুবকের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। বাড়িতেই তাঁর চিকিৎসা হচ্ছে। এদিকে ঘটনার তিনদিন বাদে পরিবারের বাকি চার সদস্যর হাবড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে লালারস সংগ্রহ করা হয়।

বুধবার রিপোর্টে জানা যায় পরিবারের চারজনের মধ্যে আরও তিনজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আগে যে যুবক আক্রান্ত ছিল তার মা দাদা ও চার বছরের বোন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। হাবড়া বাজারে যুবকদের মাছের দোকান রয়েছে । স্থানীয়দের তরফে এলাকার রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এলাকা জীবাণুমুক্ত করে বাঁশ দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, সব রেকর্ড ভেঙ্গে একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে গেল প্রায় এক হাজারে৷ ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের৷ ফলে এই পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৮২৭ জনে৷

বুধবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ ভবনের বুলেটিন অনুযায়ী, বাংলায় ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৯৮৬ জন৷ এই মুহূর্তে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ হাজার ৮২৩ জন৷ তবে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা ৭,৭০৫ জন৷ গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ৫০১ জন৷

ফলে এই পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৬,২৯১ জন৷ যা শতাংশের হিসেবে ৬৫.৬২ শতাংশ৷ যে ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে, এদের মধ্যে কলকাতারই ৬ জন৷ উত্তর ২৪ পরগনার ৬ জন৷ হাওড়া ৫ জন৷ দক্ষিণ ২৪ পরগনার ১ জন৷ হুগলি ১ জন৷ পূর্ব মেদেনীপুর ১ জন৷ মালদা ২ জন৷ জলপাইগুড়ি ১ জন৷ বাংলায় নতুন করে টেস্ট হয়েছে ১০,৩৮৬টি৷ তবেএই পর্যন্ত মোট টেস্ট হয়েছে ৫ লক্ষ ৭২ হাজার ৫২৩ জনের৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ