প্রতীকী ছবি

প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগণার বারাকপুর মহকুমায় ফের দুজনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে বলে খবর। করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন বারাকপুর পুরসভার ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের এন এন বাগচী রোডের বাসিন্দা এক গৃহবধূ। এছাড়াও করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন খড়দহের পাতুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা এক বৃদ্ধ। তিনি অবসরপ্রাপ্ত এক পুলিশকর্মী বলে জানা যাচ্ছে।

করোনায় সংক্রমিত দুজনকেই কলকাতার করোনা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। দুই করোনা আক্রান্ত রোগীর কারোরই ভিন রাজ্য বা ভিন দেশে যাওয়ার পুরানো কোনও ইতিহাস নেই বলে জানা যাচ্ছে। এন এন বাগচী রোডের বাসিন্দা গৃহবধূ সম্প্রতি জ্বরে অসুস্থ হয়ে পড়লে তার করোনা পরীক্ষা করা হয়। তাতেই তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এই ঘটনায় নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। এন এন বাগচী রোড সম্পূর্ণ জীবাণুমুক্ত করে দেওয়া হয়।

বারাকপুর পুরসভার পুরপারিষদ সুপ্রভাত ঘোষ জানান, “আমরা এন এন বাগচী রোড ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে দিয়েছি। এলাকা জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে। এলাকাবাসীকে আমরা সচেতন করছি, কেউ যেন বাড়ির বাইরে না বেরোন। এই এলাকাটি কন্টেনমেন্ট এলাকা ঘোষনা করা হয়েছে ।” এদিকে খড়দহের পাতুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের অরবিন্দ পল্লীর বাসিন্দা এক বৃদ্ধ করোনায় সংক্রমিত হয়েছে।

জানা গিয়েছে, তিনি কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। তার ডায়ালাসিস চলছিল বারাকপুরের বি এম আর সি নার্সিংহোমে। ওই বেসরকারি হাসপাতালে একসঙ্গে ৮ জন করোনায় সংক্রমিত হন কয়েকদিন আগেই। সেই একই হাসপাতালে চিকিৎসা চলছিল এই বৃদ্ধ অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মীর। মনে করা হচ্ছে সেখান থেকেই সংক্রমিত হয়েছেন পাতুলিয়ার বাসিন্দা ওই বৃদ্ধ। খড়দহের অরবিন্দ পল্লী এলাকাটি সিল করে দিয়েছে প্রশাসন। স্থানীয় বাসিন্দাদের গৃহবন্দী থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।

পাতুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান কিশোর বৈশ্য বলেন, “আমরা সব সময় মানুষের পাশে আছি। স্থানীয় বাসিন্দাদের সচেতন করা হয়েছে। কেউ যেন বাড়ির বাইরে না বেরোন সেই নির্দেশিকা মেনে চলতে বলা হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের যা দরকার তা ফোন করে জানাতে বলা হয়েছে। শীঘ্রই এই অঞ্চলটি জীবাণুমুক্ত করা হবে। সকলকে অনুরোধ করছি কেউ আতঙ্ক ছড়াবেন না, সতর্ক থাকুন ।”

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV