সোয়েতা ভট্টাচার্য, কলকাতা : ধৃত নাইজেরিয়োন কে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে দফায় দফায় জেরা করছে কলকাতা পুলিশ। রবিবার তাকে গ্রেফতার করার পর আরও একবার স্পষ্ট হয়ে গেল শহরে জাল ভিসা এবং পাসপোর্ট তৈরির চক্র এখন সক্রিয় ভাবে বেআইনি কাজকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। এর আগেও পুলিশ কর্তারা জানতে পেরেছিলেন বাংলা ছবিতে অভিনয়ের জন্য হোক বা ফুটবল খেলতে প্রায়শই শহরে এসে থাকেন নাজেরিয়োরা।

এমনকি তাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হলেও জাল ভিসা তৈরি করে দিনের পর দিন শহরেই থেকে যাচ্ছে এই ব্যাক্তিরা। তার পাশাপাশি শহরে মাদক পাচার থেকে শুরু করে বিভিন্ন বেআইনি কাজের সঙ্গে জড়িয়ে পরে অনেক নাইজেরিয়রা। আর তাদের জাল ভিসা পাসপোর্ট তৈরি করতে শহরের এই জালিয়াতরা সব সময় উদ্যোগী। এবার এই ধৃত কে জেরা করে শহরের জাল পাসপোর্ট এবং ভিসা তৈরির চক্রের হদিশ পাওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন তদন্তকারীরা। পুলিশের অনুমান শহরে সব থেকে বেশি নাইজেরিয়োরা জাল ভিসার সাহায্য থাকে। তাদের জাল পাসপোর্ট এবং ভিসা তৈরি করতে এই চক্রের সদস্যর সব সময় প্রস্তুত৷ মোটা অঙ্কের বিনিময়ে এই কাজ করে এই জালিয়াতরা৷

ধৃত এই নাইজেরিয়ো কে জেরা করে এই চক্রের সদস্যদের সূত্র খোঁজার চেষ্টা করছেন তদন্তকারীরা৷ রবিবার রবীন্দ্রসরোবর থানা এলাকার লেক টেরেস থেকে এই নাইজেরিয়ো কে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ পুলিশ জানতে পারে ২০১৩ সালে ভিসা তৈরি করে এই দেশে আসে এই ধৃত৷ তার কাছ থেকে রাজ্য সরকারের জাল সিল দেওয়া দুটি জাল ভাসা উদ্ধার করা হয়৷

শহরে মডেলিং পেশার সঙ্গে যুক্ত ছিল এই যুবক৷ কয়েকদিন আগে টলিউডে পরমব্রত চ্যাটার্জির পরিচালিত একটি ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ পায় এই যুবক৷ সূত্রের খবর একটি এজেন্সির মাধ্যমে অভিনয়ের সুযোগ পায় এই নাইজেরিয়ো৷ তবে এই বিষয়ে টলিপাড়া কোনও ব্যাক্তি কিছুই জানত লা বলেই পুলিশ কর্তারা জানতে পারেন৷ পুলিশের অনুমান শহরে এখনও অনেক নাইজেরিয়ান রয়েছে যারা জাল ভিয়া বা পাসপোর্ট বানিয়ে শহরে থাকছে৷ তাদের খোঁজও শুরু করা হয়েছে বলে পুলিশ সুত্রে জানা যাচ্ছে৷ ইতিমধ্যেই কয়েক জনের নাম জেরা মাধ্যমে উঠে এয়েছে বলে জানা যাচ্ছে যারা জাল নোট এবং পাসপোর্ট তৈরির সঙ্গে যুক্ত রয়েছে বলে পুলিশ সপত্রে জানা যাচ্ছে৷ সেই সুত্র ধরেই তদন্ত এহিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন লালবাজার কর্তারা৷