স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: বিজেপিতে যোগ ও দলবদলের সমস্ত জল্পনায় জল ঢেলে তৃণমূলেই আছেন বিপ্লব মিত্র। শুধু তৃণমূলে থাকাই নয়। লোকসভা ভোটে সেনাপতি হিসেবে দলীয় প্রার্থীকে জেতানোর দায়িত্বও পালন করবেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি৷

নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি মতো রাজ্যে ৪২টি আসনের মধ্যে বালুরঘাট আসনে দলের জয় সুনিশ্চিত করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। এই বিষয়ে সাংসদ অর্পিতা ঘোষকে গতবারের চাইতেও বেশি ভোটে জেতানোর রণকৌশল ঠিক করতে আগামী ১৭মার্চ রবিবার জেলা কমিটির বর্ধিত সভার ডাক দিয়েছেন জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র। এই সভায় জেলার সমস্ত ব্লকের কর্মী ও জনপ্রতিনিধিদের পাশাপাশি প্রাক্তনরাও উপস্থিত থাকবেন।

এবারের বালুরঘাট আসনে তৃণমূলের প্রার্থী পদে নতুন কাউকে দাঁড় করানোর দাবি তুলেছিলেন দলেরই একাংশ। সাংসদ অর্পিতা ঘোষকে নয় স্থানীয় কাউকে প্রার্থী করানোর দাবিতে সোশ্যাল মিডিয়ায় সোচ্চারও হয়ে বহু পোস্টও করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের অনেকে। এমনকি ব্লক কমিটি গুলির তরফে এই বিষয়ে রিপোর্টও জমা দেওয়া হয়েছিল।

পরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বালুরঘাট আসনে অর্পিতা ঘোষের নাম ঘোষণা করতেই কর্মীদের একাংশ ক্ষোভ প্রকাশ করতে শুরু করেন। রাজনৈতিক মহলে বিষয়টি নিয়ে শুরু হয় জোর চর্চা। আর এরই ফায়দা নিতে আসরে নেমে পড়ে বিজেপি শিবির। জানা গিয়েছে, মুকুল ঘনিষ্ঠরা সরাসরি বিপ্লব মিত্রকে প্রস্তাবও দেন গেরুয়া শিবিরে যোগদানের জন্য। যে প্রস্তাবের কথা খোদ কলকাতায় বসে স্বীকারও করেন বিপ্লব মিত্র স্বয়ং।

ভাটপাড়ার অর্জুন সিং-এর মতো বিপ্লব মিত্রও এবার বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন বলে রাজনৈতিক মহল ও খোদ তৃণমূলেরও অনেকে বলাবলি শুরু করে দেন। কিন্তু সমস্ত চর্চায় জল ঢেলে দিয়েছেন বিপ্লব মিত্র নিজেই। শুক্রবার বালুরঘাটে ফিরেই তৃণমূল জেলা সভাপতি জানিয়ে দেন, তিনি নিজে হাতে দক্ষিণ দিনাজপুরে সংগঠন তৈরি করেছেন। কোন ক্ষোভ বা নিজে প্রার্থী হওয়ার বাসনা নয়। বিষয়টি নিয়ে দল নেত্রীকে অবহিত করেছিলেন মাত্র। যা নিয়ে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা অহেতুক চর্চা শুরু করেছিলেন।

তিনি তৃণমূলে ছিলেন এবং থাকবেনও। পাশাপাশি তিনি একথাও জানান যে খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে ভোট প্রক্রিয়ার কাজ তিনিই করবেন। এমনকি জেলা সভাপতি হিসেবে তাঁর সঙ্গে আলোচনা করেই প্রচার কার্য চালানোর জন্য দলীয় প্রার্থী অর্পিতা ঘোষকেও নেত্রী নির্দেশ দিয়েছেন৷ জয়ের বিষয়ে বিপ্লব মিত্র জানিয়েছেন ২০১৪-র চাইতে আরও বেশি ভোটে দলীয় প্রার্থীকে জয়ী করিয়ে বালুরঘাট আসন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উপহার দেবেন।