কলকাতা: প্রথম ম্যাচ জিতেই বুধবার আমনে সামনে দুই দল। ব্যাট হাতে উদ্বোধনী ম্যাচে শাহরুখের দলে ত্রাতার ভূমিকায় যখন অবতীর্ণ হয়েছেন ক্যারিবিয়ান পিঞ্চ হিটার আন্দ্রে রাসেল, তখন প্রীতির দলে পালটা হিসেবে গেইল ঝড় দেখেছে গোলাপী শহর। কিন্তু সব ছাপিয়ে আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে দাঁড়িয়ে রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

জোস বাটলারকে মানকাড রান আউট করে রাতারাতি শিরোনামে এই ফিঙ্গার স্পিনার। স্বভাবতই অশ্বিনের কীর্তি দ্বিতীয় ম্যাচের আগে উত্তেজনা বাড়িয়ে দিয়েছে কয়েকগুণ। সবমিলিয়ে মানকাডিং আবহেই বুধবার ক্রিকেটের স্বর্গোদ্যানে নাইটদের সামনে কিংস ইলেভেন। জুজুহীন ইডেনের পিচ বরাবরই সহায়তা করে এসেছে ব্যাটসম্যানদের। দ্বিতীয় ম্যাচেও তাঁর অন্যথা হবে না।

আরও পড়ুন: ওয়ার্নারের সঙ্গে হোলি খেলায় মাতলেন উইলিয়ামসন

এগারোটি সংস্করণে দু’দলের মুখোমুখি সাক্ষাতে পাল্লা ভারি নাইটদেরই। ২৩ বারের সাক্ষাতে ১৫ বার জয় পেয়েছে তারা। ইডেন গার্ডেন্সে ১০ বারের সাক্ষাতে ৩ বার জয় পেয়েছে পঞ্জাবের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলটি। সুতরাং বুধের সন্ধ্যায় ঘরের মাঠে বেশ কিছুটা এগিয়ে থেকেই শুরু করবে শাহরুখের দল। তার উপর প্রথম ম্যাচে থ্রিলার জয় যে দলের আত্মবিশ্বাস যে বাড়িয়ে দিয়েছে বেশ কয়েকগুণ, তা আর বলের অপেক্ষা রাখে না।

আরও পড়ুন: ‘অশ্বিনকে যারা সমর্থন করছেন, কোহলিকে স্টোকস মানকাড করলে তারা কী বলতেন’

নীতিশ রানার ৪৭ বলে ৬৮ রান কিংবা আন্দ্রে রাসেলের ১৯ বলে ৪৯ রানের ম্যাচ জেতানো ইনিংস তো রয়েইছে। পাশাপাশি ভরসা জুগিয়েছে শুভমান গিলের ১০ বলে ১৮ রানের গুরুত্বপূর্ণ ক্যামিও ইনিংস। পালটা হিসেবে প্রথম ম্যাচে পঞ্জাব দলে সাড়া জাগিয়েই শুরু করেছেন ‘ইউনিভার্স বস’ ক্রিস গেইল এবং তরুণ সরফরাজ খান। রাজস্থানের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে ক্যারিবিয়ান মায়েস্ত্রোর ব্যাট থেকে এসেছে ৪৭ বলে বিস্ফোরক ৭৯। পাশাপাশি ২৯ বলে গুরুত্বপূর্ণ ৪৬ রানের ইনিংস খেলেছেন সরফরাজ।

আরও পড়ুন: অশ্বিনকে নিয়ে নিন্দার ঝড় সোশ্যাল মিডিয়ায়

এদিকে আঙুলে চোট পাওয়ায় বুধবারের ম্যাচে সুনীল নারিনের সার্ভিস নাও পেতে পারে নাইট শিবির। পরিবর্তে অভিষেক হতে পারে জো ডেনলির। বাকি দল অপরিবর্তিতই। অন্যদিকে কিংস ইলেভেন শিবিরেও একটি পরিবর্তনের সম্ভাবনা। নিকোলাস পুরানের জায়গায় একাদশে শুরু করতে পারেন ডেভিড মিলার। সুতরাং প্রথম ম্যাচের উইনিং কম্বিনেশনে একটি মাত্র বদল এনে কাল ইডেনে মুখোমুখি যুযুধান দুই প্রতিপক্ষ।