গুয়াহাটি ও করিমগঞ্জ: পারফিউম ব্যারন বা আতর সম্রাট হিসেবে যে বিরাট পরিচিতি আছে তাতে তুষ্ট হতে চাননি অসমের অন্যতম রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বদরুদ্দিন আগমন। বরাক নদীর উপত্যকায় বাঙালি অধ্যুষিত অসমের নেতা বারবার রাজনৈতিক আলোয় থাকতে পছন্দ করেন।

বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে ক্ষমতায় থাকা বিজেপির বিরুদ্ধে এই সংখ্যালঘু নেতা তথা ধুবড়ি লোকসভার সাংসদকেই জোটসঙ্গী করে লড়াইয়ে নামছে কংগ্রেস। সূত্রের খবর, দ্রুত জোটের ঘোষণা করা হবে। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা প্রবীণ কংগ্রেস নেতা তরুণ গগৈয়ের সঙ্গে এআইইউডিএফ নেতা বদরুদ্দিন আজমলের জোট শর্ত নিয়ে আলোচনা চূড়াম্ত হয়েছে।

গত বিধানসভা নির্বাচনে অসম হাতছাড়া হয় কংগ্রেসের। ক্ষমতায় আসে বিজেপি। ১২৬ আসনের বিধানসভায় বিজেপির দখলে আছে ৮৭ আসন। এই জোটের অগপ ১৪ এবং বিপিএফ ১২টি, একটি নির্দল আসন রয়েছে। দুটি আসন ফাঁকা।

বিরোধী কংগ্রেসের আছে ২৩টি। আর বদরুদ্দিন আজমলের দখলে আছে ১৪টি। আসন্ন নির্বাচনে কংগ্রেস ও এআইইউডিএফ জোট বরাক উপত্যকায় বিজেপির কাছে বড় বাধা হতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে।

কারণ, এনআরসি ও সিএএ ইস্যুতে রক্তাক্ত পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল অসম সহ উত্তর পূর্ব ভারতেই। অসমের বরাক উপত্যকায় বাংলাভাষীদের উপর হামলা হয়। রাজ্যে বারবার অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি তৈরি হয়। মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল ঘেরাও হন। একাধিক বিজেপি নেতা আক্রান্ত হন। এর পরেও লোকসভায় সফলতা পায় এনডিএ।

কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনের আগে সরকারের শরিকের মধ্যে দ্বন্দ্ব বাড়ছে। এই সুযোগে কংগ্রেস হারানো রাজ্য পুনরুদ্ধারে বদরুদ্দিন আজমলের সঙ্গে হাত মিলিয়ে লড়াই করতে নামছে। তরুণ গগৈ ও আজমল আগামী ৩ অক্টোবর গুয়াহাটিতে জোট ঘোষণা করবেন বলেই সূত্রের খবর।

সংখ্যালঘু নেতা ও সাংসদ বদরুদ্দিন আজমলের আন্তর্জাতিক পরিচিতি রয়েছে। তিনি সাম্প্রতিক প্রভাবশালী মুসলিম ব্যক্তিতদের মধ্যে অন্যতম। গত লোকসভা নির্বাচনে এই আতর সম্রাটকে বিজেপি বিরোধী জোটের নেত্রী পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্রিগেড জনসভায় আমন্ত্রণ জানানো হয়।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।