স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ভোটের শেষ দিনেও প্রধানমন্ত্রীকে ঘিরে বিতর্ক৷ কেদারনাথ ও বদ্রীনাথে গিয়ে আদর্শ আচণবিধি লঙ্ঘন করেছেন মোদী৷ ইতিমধ্যেই কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে তৃণমূল৷ চুপ করে বসে নেই কংগ্রেসও৷ প্রদেশ কংগ্রেসের তরফেও কমিশনে চিঠি দিয়ে একই অভিযোগ আনা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে৷ দ্রুত পদক্ষেপরও দাবি তোলা হয়েছে৷

দুদিনের সফরে শনিবারই উত্তরাখণ্ডে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷ শনিবার কেদারনাথ মন্দিরে পুজো দেন মোদী৷ তারপর ঘুরে দেখেন মন্দির চত্বর৷ মন্দির শহরের উন্নয়নে কথা বলেন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যসচিবের সঙ্গে৷ পরে কেদারনাথের গুহায় ধ্যানে বসেন তিনি৷ সেই ছবি সম্প্রচারিত হয় সংবাদ মাধ্যমে৷

তৃণমূলের অভিযোগ, কেদারনাথ-বদ্রিনাথ যাত্রা করে ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে গেরুয়া দলের ‘পোস্টার বয়’৷ তৃণমূল মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন কমিশনকে চিঠিতে লেখেন, ‘‘শেষ দফার ভোটের প্রচার গত ১৭ মে সন্ধ্যা ৬টায় শেষ হয়ে গেলেও, গত দু’দিন ধরে সর্বভারতীয় ও স্থানীয় টেলিভিশন চ্যানেলগুলিতে প্রধানমন্ত্রী মোদীর কেদারনাথ যাত্রার ঢালাও প্রচার হচ্ছে। এটা নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করছে। এটা বন্ধে অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে হবে।’’

 

মোদীর সফরে শোনা গিয়েছে ‘জয় মোদী’ স্লোগান৷ কেদারনাথ মন্দিরের উন্নয়নের মাস্টার প্ল্যান তৈরি হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কেদারনাথে গিয়ে জনসভা করেছেন। সাংবাদিক সম্মেলনও করেছেন। যা ভোটারদের প্রভাবিত করা হচ্ছে বলে চিঠিতে জানিয়েছেন ডেরেক৷

তৃণমূলের পাশাপাশি মোদীর বিরুদ্ধে আদর্শ আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে তুলেছে প্রদেশ কংগ্রেসও৷ সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য চিঠিতে লেখেন, ‘মোদীর এই সফর মজেল কোড ওফ কন্ডাক্টের পরিপন্থী৷ যা ভোটারদের উপর প্রভাব বিস্তার করতে পারে৷ অবিলম্বে এর বিরুদ্ধে ব্যস্থা নিন৷’