লখনউ: ফের কংগ্রেসকে দায়ি করল ইসলামিক প্রতিষ্ঠান জামাত-এ-ঊলেমা হিন্দ। দেশের বিভিন্নপ্রান্তে লিঞ্চিং এর ঘটনায় বারবার বিজেপির নাম উঠে এলেও, এক্ষেত্রে ছবিটা অন্যরকম।

গুয়াহাটিতে একটি প্রেস কনফারেন্স চলাকালীন শুক্রবার প্রতিষ্ঠানের জাতীয় সভাপতি মৌলানা সুহাইব কাশমি জানান, দেশের এই ক্রমবর্ধমান গণপিটুনির ঘটনার জন্য বিজেপি ও আর.এস.এস একদমই দায়ি নয়, এর দায় পুরোপুরি কংগ্রেসের।

তাঁর বক্তব্যে তিনি একাধিকবার কংগ্রেসকে দোষারোপ করে বলেন, ভারতবর্ষের বিভিন্ন অংশে গণপিটুনির ঘটনার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ দায় কংগ্রেসের। হাই-লেভেল তদন্ত করলেই যা নাকি পরিস্কার হয়ে যাবে। তিনি এও বলেন যে, ভারতের জাতীয়তাবাদী কংগ্রেসকে তাদের সময় কার ঘটনাগুলি নিয়ে ও প্রশ্ন করা উচিত।

মব লিঞ্চিং ও জয় শ্রী রাম ধ্বনি নিয়ে দেশের বিভিন্নপ্রান্তে সাধারণ মানুষের নিগ্রহের খবর বারাবার উঠে এসেছে। এর বিষয়ে বলতে গিয়ে কংগ্রেস নেতা সলমান খুরশিদ বলেন, “মানুষ বর্তমানে সবসময় ভয় নিয়ে বেঁচে আছে।”

মাদ্রাসা ছাত্রের জয় শ্রী রাম ধ্বনি না বলায় পিটুনির ঘটনা সামনে এসেছে সদ্য। এই প্রসঙ্গে কথা বলার সময় কংগ্রেসের প্রাক্তন এই মন্ত্রী জানান, “যারা দিল্লিতে শহরে বসবাস করেন তাদের কোনো ভয় নেই কিন্তু যারা তাঁর বাইরে আছে তাদের পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি খুব একটা সহজ নয়।”

সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের কানপুরে বুধবার মাঝরাতে এক অটো চালককে কিছু লোক মিলে মারধোর করেছিল। পরে ঐ অটো চালক আতিব অভিযোগ করে যে তাকে জয় শ্রীরাম না বলার কারণে মারধোর করা হয়েছিল। যদিও পুলিশ তদন্ত করার পর অন্য গল্প সামনে এসেছে। এই মামলায় এসপি সাউথ রবিনা ত্যাগী বলেন, প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে যে পীড়িত ও অপরাধী একসাথে বসে মদ্য পান করছিল, সেই সময় কোনো ব্যাপার নিয়ে কথা কাটাকাটি হয় এবং তারপর মারপিট শুরু হয়ে যায়। জয় শ্রীরামের স্লোগান দেওয়ার বিরুদ্ধে মারধোরের গল্পটা মিথ্যে। আর বাকি অভিযোগের তদন্ত চলছে।