কলকাতা:  নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির প্রতিবাদে পথে নামল যুব কংগ্রেস। কেন্দ্রের এই দুই আইন বাতিলের দাবি শনিবার রাজভবন অভিযান করে যুব কংগ্রেস। রাজভবনের গেটে জমায়েত করে বিক্ষোভ দেখান যুব কংগ্রেসের কর্মী-সমর্থকরা। কেন্দ্রীয় আইনের প্রতিবাদে প্ল্যাকার্ড হাতে চলে তুমুল বিক্ষোভ। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বিভাজনের রাজনীতির অভিযোগ তুলে চলে স্লোগানিং।

পুলিশের সঙ্গে তুমুল ধস্তাধস্তি হয় কংগ্রেস কর্মীদের। রাজভবনের গেটে বসে প্রতিবাদ জানান কংগ্রেস কর্মীরা। গেটের সামনে থেকে তুলে দিলে পরে রাজভবনের সামনে রাস্তায় বসেও কেন্দ্রীয় আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে থাকেন কংগ্রেস কর্মীরা। শেষমেশ পুলিশ তাঁদের সরিয়ে দেয়। অবিলম্বে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ও এনআরসি বাতিলের দাবি জানান কংগ্রেস কর্মীরা।

নাগরিকত্ব সংশোধিত আইন ও এনআরসির প্রতিবাদে শুরু থেকেই প্রতিবাদ জানিয়েছে কংগ্রেস। সংসদের দুই কক্ষেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পেশের সময় থেকেই তুমুল হইচই করেন কংগ্রেস সাংসদরা। যদিও সংখ্যাগরিষ্ঠতার সুযোগ নিয়ে সংসদের দুই কক্ষেই নাগরকিত্ব সংশোধনী বিল পাশ করিয়ে নেয় কেন্দ্রীয় সরকার। এরপর রাষ্ট্রপতির সেই বিলে অনুমোদনের পর তৈরি হয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন। ইতিমধ্যেই এই আইনের প্রতিবাদে গোটা দেশ উত্তাল। উত্তর-পূর্বের অসম, ত্রিপুরা, মণিপুর থেকে শুরু হয়ে বিক্ষোভের দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, কর্নাটক-সহ পশ্চিমবঙ্গেও।

কেন্দ্রীয় আইনের প্রতিবাদে দেশের একাধিক রাজ্যে পথে নেমে বিক্ষোভ-আন্দোলনে সামিল হয়েছেন হাজার হাজার মানুষ। কলেজ পড়ুয়া, বুদ্ধিজীবীদের পাশাপাশি প্রতিবাদ জানিয়েছেন অসংখ্য সাধারণ মানুষ। এরাজ্যে প্রায় এক সপ্তাহ ধরে কেন্দ্রীয় আইনের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ চলে। বিক্ষোভ-আন্দোলনের নামে তাণ্ডবও চলে রাজ্যের জেলায়-জেলায়। বাস পুড়িয়ে, ট্রেন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখান এক শ্রেণির উন্মত্ত জনতা। নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তৃণমূলনেত্রী নিজেও পথে নেমে একের পর এক প্রতিবাদ মিছিল ও সভা করেছেন। শুক্রবারও কেন্দ্রীয় পদক্ষেপের বিরুদ্ধে একগুচ্ছ কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তৃণমূল, বামেদের পাশাপাশি এরাজ্যেও কেন্দ্র বিরোধিতায় পথে নেমেছে কংগ্রেসও। আগেও কলকাতার একাধিক এলাকায় কেন্দ্র-বিরোধিতায় পথে নেমে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন কংগ্রেস নেতারা। শনিবার রাজভবন অভিযানের ডাক দিয়েছিল যুব কংগ্রেস। শনিবার দুপুরে রাজভবনের গেটে পৌঁছে যান যুব কংগ্রেসের একদল কর্মী-সমর্থক। হাকে প্ল্যাকার্ড ও মুখে কেন্দ্র বিরোধিতায় স্লোগান দিতে থাকেন কংগ্রেস কর্মীরা।

দেশের স্বার্থেই অবিলম্বে নাগরিকত্ব সংশোধিত আইন ও এনআরসি বাতিলের দাবি জানান কংগ্রেস কর্মীরা। যুব কংগ্রেসের বিক্ষোভে বাধা দেয় পুলিশ। পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় কংগ্রেস কর্মীদের। রাজভবনের গেটের সামনে থেকে সরিয়ে দিলে রাস্তায় বসে বিক্ষোভ দেখান যুব কংগ্রেস কর্মীরা। পরে রাস্তা থেকেও কংগ্রেস কর্মীদের সরিয়ে দেয় পুলিশ।