ওয়ানাড: প্রচারে এসেছেন বক্তব্য পেশ করার জন্য নয়৷ এসেছেন মানুষের কথা শোনা ও বোঝার জন্য৷ ওয়ানাডে প্রচারে গিয়ে এই মন্তব্য করেই মানুষের মন জয়ের চেষ্টা করলেন ওই কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী রাহুল গান্ধী৷

এদিন প্রচারের আগে তিরুনেল্লি মন্দিরে পুজো দেন কংগ্রেস সভাপতি৷ পরনে ছিল চিরাচরিত পোশাক৷ পরে দক্ষিণী রাজ্য করালার ওয়ানাডে প্রচার সারেন তিনি৷ আমেঠির পাশাপাশি এবার ওই কেন্দ্র থেকেই মনোনয়ন জমা দিয়েছেন রাহুল৷

আরও পড়ুন: ‘বহিরাগত’ বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপার প্রচার আটকালো গ্রামবাসীরা

এদিন প্রচারে কংগ্রেস সভাপতি ‘মন কি বাতে’র কথা বলে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে খোঁচা দেন৷ তিনি বলেন, ‘‘আমি এখানে আমার মনের কথা বলতে আসিনি৷ আমি কি ভাবছি বলতেও আসিনি৷ এসেছি আপনাদের হৃদয়ের কথা জানতে৷’’

দক্ষিণী রাজ্যে বিজেপি সেই ভাবে পদ্ম মেলতে পারেনি৷ কিন্তু হাতচের মুঠো শক্ত করার সুযোগ রয়েছে কংগ্রেসের৷ আর দক্ষিণের কোনও একটি আসন থেকে রাহুল গান্ধী লড়লে তা দলীয় সংগঠনের জন্য ভালো হবে৷ উজ্জীবিত হবেন দলের কর্মী, সমর্থকরা৷ একই সঙ্গে বার্তা দেওয়া যাবে বামেদের৷

আরও পড়ুন: ভেলোরে ভোট বাতিল, কমিশনের বিরুদ্ধে আদালতে এআইএডিএমকে প্রার্থী

দিন কয়েক আগেই ওয়ানাডে লড়ার জন্য মনোনয়ন জমা দিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি৷ সঙ্গে ছিলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও৷ বিরাট শোভাযাত্রার মাধ্যমে হয় মনোনয়ন পেশ৷ ওয়ানাড কংগ্রেসের কাছে অনেকটাই সুরক্ষিত আসন৷ অন্যদিকে, বামেদের জোট ইউডিএফ-ও কেরালায় শক্তিশালী৷ ফলে লড়াই সরাসরি রাহুলের সঙ্গে৷ ইতিমধ্যেই রাহুলকে কটাক্ষ করছে বামেরা৷

এই পরিস্থিতিতে বামেদের জাবাব দিতে নারাজ কংগ্রেস সভাপতি৷ রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, বৃহত্তর জাতীয় রাজনীতির কথা ভেবেই রাহুলের কৌশলী পদক্ষেপ৷ এদিনও তাই প্রচারে বামেদের বিরুদ্ধে খুব বেশি সরব না হয়ে মানুষের হৃদয়ের কথা জানতে চেয়ে ভোটারদের মন জয়ের চেষ্টা করলেন তিনি৷