নয়াদিল্লি: মহিলাদের অপমান করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ভিডিও-র মাধ্যমে এই বার্তা প্রচার করছে কংগ্রেস। শুধু নরেন্দ্র মোদীই নন, তাঁর দলের নেতা-মন্ত্রীরা কীভাবে বিভিন্ন সময়ে মহিলাদের প্রতি অপমানজনক মন্তব্য করেছেন, সেগুলো তুলে ধরছে কংগ্রেস। বিজেপি ও আরএসএস মইলাদের সম্মান করে না, এমনটাই মত এই বিরোদী দলের।

ট্যুইটারে এই সংক্রান্ত এক জোড়া ভিডিও পোস্ট করেছে কংগ্রেস। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, অরুণ জেটলি, মোহন ভাগবত ও আরও বিজেপি, সঙ্ঘ নেতাদের মন্তব্য সামনে আনা হয়েছে। অভিযোগ, নানা সময়ে মহিলাদের সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন এরা। অফিশিয়াল ট্যুইটার হ্যান্ডেলে সেই ভিডিও পোস্ট করা হয়েছে।

ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, ‘দ্রুত এক ঝলকে মহিলাদের সম্পর্কে শীর্ষ বিজেপি, আরএসএস নেতাদের দৃষ্টিভঙ্গি’।

প্রথম ভিডিওতে রয়েছে অতীতে বিশিষ্ট মহিলাদের সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী মোদীর নানা মন্তব্য। ১১২ সেকেন্ডের ভিডিওতে কংগ্রেস নেত্রী রেনুকা চৌধুরি, প্রয়াত সুনন্দা পুস্কর, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ইউপিএ চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধীকে নিয়ে মোদী যেসব মন্তব্য করেছেন, সেগুলি রাখা হয়েছে। এতে তাঁর মহিলাদের প্রতি অপমান প্রকাশ পেয়েছে বলেই দাবি কংগ্রেসের। যেমন, মোদী সুনন্দা পুষ্কর সম্পর্কে বলেছেন, ‘কেউ কখনও শুনেছেন, ৫০ কোটির গার্লফ্রেন্ড?’ আবার কোনও এক বক্তৃতায় বলেছিলেন, ‘শেখ হাসিনা মহিলা হওয়া সত্বেও তিনি সন্ত্রাসমুক্ত করার ডাক দিয়েছেন।’

জেটলিকে ভিডিওতে একটি গণধর্ষণকে ছোট্ট ঘটনা বলতে শোনা যাচ্ছে, মোহন ভাগবত বিয়েকে স্রেফ একটা চুক্তি বলে খাটো করছেন, মেয়েদের স্থান পুরুষের নীচে, বলতে শোনা যাচ্ছে তাঁকে।

পরের ভিডিওতে আরও বিজেপি নেতাদের সমালোচনা করা হয়েছে মেয়েদের সম্পর্কে তাঁদের বিতর্কিত মন্তব্যের অভিযোগে। শোনা যাচ্ছে, তাঁদের একজন এক মহিলা কংগ্রেসকর্মীকে যৌনকর্মী বলছেন, আরেকজন ছত্তিশগড়ের মেয়েদের সম্পর্কে খারাপ কথা বলছেন। #SexistModi হ্যাশট্যাগে কংগ্রেস এই প্রচার করেছে।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।