বেঙ্গালুরু: প্রাক্তন কংগ্রেস নেত্রীর রহস্যমৃত্যুকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল৷ মৃত নেত্রীর নাম রেশমা পাদেকানুরা৷ শুক্রবার সকালে কর্ণাটকের বিজয়াপুরা জেলার কোলহার গ্রামের কৃষ্ণা নদীর পারে তাঁকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়৷ এটি আত্মহত্যা না খুন তা পরিস্কার নয়৷ ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ৷

আরও পড়ুন: পাগড়ি পরায় মার্কিন রেস্টুরেন্টে ঢুকতে বাধা শিখ যুবককে

কোলহার থানার পুলিশ একটি অস্বাভাবিক খুনের মামলার অভিযোগ দায়ের করেছে৷ তবে প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, খুন করা হয়েছে ওই কংগ্রেস নেত্রীকে৷ রাজনৈতিক কারণে এই খুন নাকি হত্যার পিছনে অন্য রহস্য রয়েছে তা জানার চেষ্টা চলছে৷

জানা গিয়েছে, কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার আগে তিনি নিবিড় ভাবে জেডি(এস) এর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন৷ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামীর দলে থাকাকালীন বিজয়পুরা জেলার মহিলা শাখার সভাপতির দায়িত্ব সামলান৷ প্রায় এক দশক সেই পদে ছিলেন৷ ২০১৩ সালে বিধানসভা ভোটে দাঁড়ান৷ দল তাঁকে দেভারাহিপ্পারাগি বিধানসভা কেন্দ্রের টিকিট দেয়৷ কিন্তু রেশমা ভোটে হেরে যান৷

আরও পড়ুন: নদীর পাড় থেকে উদ্ধার দু’হাজার আধার কার্ড

২০১৮ সালেও আরও একবার ভোটে দাঁড়ানোর ইচ্ছা প্রকাশ করেন৷ কিন্তু দল এবার টিকিট না দেওয়ায় কংগ্রেসে যোগ দেন৷ পুলিশি তদন্তে জানা গিয়েছে, রেশমাকে শেষবার বৃহস্পতিবার রাতে অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তাহেদুল মুসলিমেন দলের নেতা তৌফিকের সঙ্গে তাঁরই গাড়িতে দেখা যায়৷ মৃতার স্বামী পুলিশকে জানান, এই তৌফিকের সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে কিছু বিবাদ চলছিল৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.