স্টাফ রিপোর্টার, হলদিয়া : প্রয়াত হলেন প্রবীন কংগ্রেস নেতা নিরঞ্জন বেরা। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। কয়েকদিন ধরে তিনি বার্ধক্যজনিত অসুস্থতায় ভুগছিলেন। সম্প্রতি সুস্থ হয়ে উঠলেও সোমবার ভোরবেলা বাথরুমে পা পিছলে পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত লাগার কারণে তাঁর মৃত্যু হয়ছে বলে পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে।

তিনি এক দিকে সুশিক্ষক অন্যদিকে পোড়খাওয়া রাজনীতিবিদ ছিলেন। তাঁর হাত ধরেই গ্রামীণ ছেলে মেয়েদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করার জন্য কুম্ভচক হাই স্কুল ও একটি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল গড়ে উঠেছিলো। ছয়ের দশকে রাজনীতিতে পা দিয়েছিলেন। তৎকালীন রাজনীতিবিদ আলোক চক্রবর্তীর হাত ধরেই রাজনীতিতে যোগদান তাঁর।

আজীবন কংগ্রেসি ছিলেন। একাধিকবার তিনি পঞ্চায়েত সমিতি সদস্য হয়েছিলেন। ১৯৯৩ সালে তিনি বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষের পদ সামলিয়ে ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে রাজনৈতিক মহলে । এদিন উপস্থিত ছিলেন তাঁর অনুগামী সন্তোষ গোস্বামী, রঘুনাথ কামিলা, শুকদেব জানা সহ অন্যান্যরা ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.