স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: দুই দলেরই শক্তি একেবারে তলানিতে৷ রাজ্যের প্রধান বিরোধী দলের জায়গা দখল করেছে বিজেপি৷ লড়াই তাই অস্তিত্ব রক্ষার৷ তিক্ততা ভুলে ফের একবার কাছাকাছি আসার চেষ্টায় কংগ্রেস সিপিএম৷

ভাটপাড়ায় শান্তি ফেরানোর দাবিতে আজ কাঁকিনাড়া স্টেশন থেকে মিছিল করবে সিপিএম৷ এই মিছিলে অংশ নেবেন দলের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র৷ থাকবেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুও৷ একদা জোটসঙ্গীদের এই শান্তির উদ্যোগে সামিল প্রদেশ কংগ্রেস৷ এদিনের শান্তি মিছিলে হাঁটবেন সোমেন মিত্র৷

আরও পড়ুন: বাংলায় শান্তি ফেরাতে ‘এনকাউন্টার তত্ত্বে’র দাওয়াই রাজু, সায়ন্তনের

জানা গিয়েছে, সিপিএম ও কংগ্রেস এক যোগে এদিন ভাটপাড়া থানায় শান্তি ফেরানোর দাবি জানাবে৷ মেরুরকরণের রাজনীতি ও সন্ত্রাস মোকাবিলায় বিকল্প জোট ছাড়া এগিয়ে যাওয়া মানে বিজেপি ও তৃণমূলকেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া৷ মনে করে সূর্যকান্ত, সোমেন মিত্ররা৷ তাই আসন্ন বিধানসভা ভোটের কথা মাথায় রেখেই ভাটপাড়া থেকেই শুরু হচ্ছে সিপিএম কংগ্রেস জোটের সলতে পাকানোর কাজ৷ বিধানসভার অন্দরে অবশ্য এই দুই দল সমন্বয়ের মাধ্যমেই কাজ করে থাকে৷

আরও পড়ুন: ভাটপাড়া গুলিকাণ্ডে অভিযুক্ত পুলিশদের লোকসভায় কৈফিয়ৎ তলব করা হবে: অর্জুন সিং

উত্তর ২৪ পরগনা জেলা শহরাঞ্চলের পক্ষ থেকে বারাকপুরে মঙ্গলবার কংগ্রেসের কর্মসূচি ছিল৷ অন্যদিকে, শান্তি মিছিলের ডাক দেয় সিপিএমও৷ তাই পৃথক কর্মসূচি না করে যৌথভাবেই প্রতিবাদে সামিল হয় দুই দল৷ সূত্রের খবর, এর আগে সোমেন মিত্র ও সূর্যকান্ত মিশ্ররা বেশ কয়েকবার কথা বলেছিলেন৷ সিদ্ধান্ত হয়, বিধানসভার ভিতরের মতো বাইরেও সিপিএম ও কংগ্রেস নেতা, কর্মীরা প্রয়োজনে যৌথকর্মসূচি পালন করবে৷

এই প্রসঙ্গেই উঠে আসে ২০১৬-র ভোটের প্রচার পর্বের কথা৷ সেবার ভোটে আসন ভাগাভাগি করে লড়াই করেছিল বাম কংগ্রেস৷ সিপিএমে সিদ্ধান্ত হয় আসন ভাগ হলেও তারা কংগ্রেসের সঙ্গে প্রচার মঞ্চ ভাগ করবেন না৷ তাই, এলাকায় থাকলেও সিঙ্গুরে তৎকালীন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির প্রচার মঞ্চের ধারেকাছে যাননি সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি৷ পরিস্থিতির বদলে এই ছুৎমার্গ ঝেড়ে ফেলছে কমিউনিস্ট দলটি৷ আবারও হাত ধরেই আন্দোলনের পথে আলিমুদ্দিনের নেতারা৷